নিউইয়র্ক: গাড়ি প্রস্তুতকারী সংস্থা টেসলা প্রকাশ্যে আনল তাদের নতুন একটি মডেল। তবে টেসলার এই নয়া গাড়ি তার আধুনিক প্রযুক্তি ও বৈশিষ্ট্যের জন্য নয়, খবরে উঠে এল অন্য কারণে। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সবার সামনে পরীক্ষা দিতে গিয়ে ভেঙেই গেল সেই গাড়ির কাচ। যা নিয়ে রীতিমতো অস্বস্তিতে পড়েন টেসলার সিইও ইলন মাস্ক স্বয়ং। পরে অবশ্য বিষয়টি সামাল দেওয়ার চেষ্টাও করেন তিনি।

ঘটনাটি গত বৃহস্পতিবারের। লস অ্যাঞ্জলসে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান ছিল টেসলার নতুন এই গাড়িটির। এটি টেসলার প্রথম বৈদ্যুতিন পিকআপ ট্রাক, নাম রাখা হয়েছে ‘সাইবারট্রাক’। এটি জেমস বন্ডের সিনেমা ‘দ্য স্পাই হু লাভড’-এর গাড়ির আদলে তৈরি করা হয়েছে এই ঝাঁ চকচকে গাড়িটির। সিনেমায় সেই গাড়িকে জেমস বন্ড জলের তলা দিয়েও চালিয়ে নিয়ে গিয়েছিলেন, সাবমেরিনের মতো। তবে ইলন মাস্কের এই গাড়ি অবশ্য রাস্তা দিয়েই চলতে পারে।

উন্নত ধরণের প্রযুক্তি যুক্ত এই ট্রাক নজর কেড়েছে সকলের। জানানো হয়েছে অন্যান্য স্পোর্টস কারের থেকেও ভাল পরিষেবা দেবে এই গাড়ি। এতে থাকছে স্টেনলেস স্টিল বডি এবং আরমার গ্লাস। এই স্টিল বডি থাকার কারণে যে কোন দুর্ঘটনাতে ক্ষতিগ্রস্ত হবে না। এই গাড়ির সিঙ্গেল মোটর মাত্র ৬.৫ সেকেন্ডে এই গাড়ি ০-৬০ কিলোমিটার/ঘণ্টায় গতি তুলতে পারবে। ছাড়াও ৭৫০০ পাউন্ড পর্যন্ত ওজন বইতে পারবে। ডুয়েল মোটরে এই গাড়ি ০-৬০ কিলোমিটার/ঘণ্টায় গতি তুলতে পারবে মাত্র ৪.৫ সেকেন্দের মধ্যে। অর্থাৎ এই ট্রাক দ্রুততার এক অন্য বিকল্প হয়ে উঠবে তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

সাইবারট্রাক উদ্বোধনে ইলন মাস্ক সবার সামনে এই গাড়ির বৈশিষ্ট্যগুলি তুলে ধরছিলেন। তিনি জোর গলায় বলেছিলেন, এই গাড়ির কাচ প্রবল আঘাত সহ্য করতে পারে। সহজে ভাঙা যায় না। তখনই টেসলার লিড ডিজাইনার ফ্র্যাঞ্জ ভন হলঝাউসেন-কে ডেকে আনেন তিনি। তাঁকে একটি বড় ধাতুর বল, গাড়ির ড্রাইভারের দিকের কাচের জানলায় ছুড়তে বলেন ইলন। সেই মতো বল ছুড়তেই ভেঙে যায় কাচ। তিনি ফ্রেঞ্জকে বলেন, পিছনের আসনের কাচে আবার বলটি ছুড়তে। সেখানেও ফলাফল হয় একই। নিজের কোম্পানির গাড়ির এই হাল দেখে হতচকিত হয়ে যান ইলন।

পরিস্থিতি সামাল দিতে ইলন জানান, এমনটা হওয়ার কথা নয়। তাঁরা এই কাচে সব কিছু ছুড়ে দেখেছেন। পরীক্ষা সফল ছিল। কিন্তু এখন কেন এমন হল তা তাঁরা খতিয়ে দেখছেন। সেই সঙ্গে তিনি যোগ করেন, কাচ ভাঙলেও বলটা অন্তত ভিতরে ঢুকে যায়নি।

এই ঘটনার ভিডিও মুহূর্তেই ভাইরাল হয়ে যায়। আর এই ঘটনা নিয়ে টুইটারে মজা-মস্করায় মেতে ওঠেন নেটিজেনরা।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও