নয়াদিল্লি: প্রজাতন্ত্র দিবসের আগে কেন্দ্রীয় সরকারকে সতর্ক করলেন গোয়েন্দারা। পাকিস্তান অধিকৃত কাশ্মীরে এই মুহূর্তে ওত পেতে রয়েছে প্রায় ৩০০ জঙ্গি। সীমান্ত পেরিয়ে ভারতে ঢোকার মরিয়া চেষ্টা চালাচ্ছে জঙ্গিরা। এমনই রিপোর্ট কেন্দ্রকে দিয়েছেন গোয়েন্দারা। গোয়েন্দা রিপোর্টে আরও জানানো হয়েছে, ওই জঙ্গিদের মধ্যেই রয়েছে বেশ কিছু আফগানও।

মাস তিনেক আগে ভারতীয় সেনা নীলম উপত্যকায় জঙ্গিদের একাধিক লঞ্চপ্যাডে হামলা চালায়। সেনার অভিযানেপ্রায় ১০ জঙ্গি নিহত হয়েছিল বলে জানা গিয়েছে। গোয়েন্দা রিপোর্টে বলা হয়েছে, এখনও পাক অধিকৃত কাশ্মীরে ৪০-৫০টি জঙ্গি লঞ্চপ্যাড সক্রিয় রয়েছে। জঙ্গলঘেরা ওই লঞ্চপ্যাডগুলি দেখভালের দায়িত্বে রয়েছে পাকিস্তানের গোয়েন্দা সংস্থা ইন্টার সার্ভিসেস ইন্টেলিজেন্স এবং পাকিস্তান সেনা। পাক অধিকৃত কাশ্মীরে এই মুহূর্তে ওত পেতে রয়েছে প্রায় ৩০০ জঙ্গি। ভারতে ঢুকে নাশকতা চালানোর ছক কষেছএ জঙ্গিরা। ওই জঙ্গি দলেই রয়েছে বেশ কিছু আফগানও। ৬০-৭০ আফগান যুবক রয়েছে ওই জঙ্গি দলে।

পাক অধিকৃত কাশ্মীরের লিপা, নীলম, টংধার উপত্যকায় জঙ্গিদের একাধিক লঞ্চপ্যাড পুরোপুরি সক্রিয়। ভারতে হামলার সতর্কবার্তা দিয়েছেন গোয়েন্দারা। গোয়েন্দা রিপোর্টে সতর্ক করে বলা হয়েছে, জঙ্গিরা ভারতে অনুপ্রবেশের অপেক্ষায় রয়েছে। জম্মু ও কাশ্মীর ছাড়াও দেশের একাধিক বড় শহরে নাশকতার ছক কষেছে পাক জঙ্গিরা। এদিকে ২৬ জানুয়ারি প্রজাতন্ত্র দিবসের আগে দেশের বড় শহরগুলিতে গোয়েন্দা রিপোর্ট অনুযায়ী চূড়ান্ত সতর্কতা জারি করা হয়েছে।

এরই পাশাপাশি জম্মু ও কাশ্মীরেও নিরাপত্তা আরও জোরদার করা হয়েছে। পাকিস্তান সীমান্তের গ্রামগুলিতে নজরদারি বাড়ানো হয়েছে। এছাড়াও উপত্যকার বিভিন্ন এলাকায় টহলদারি আরও বাড়িয়েছে সেনা। এই মুহুর্তে জম্মু ও কাশ্মীর জুড়ে তুষারপাত চলছে। বরফের চাদরে ঢেকে রয়েছে ভূস্বর্গ। একাধিক রাস্তাঘাট বরফে ঢাকা পড়েছে। যান চলাচল ব্যাহত হচ্ছে প্রতিদিন। আর আবহাওয়ার এই প্রতিকূল পরিস্থিতিই কাজে লাগাতে চাইছে জঙ্গিরা। প্রবল তুষারপাতকে কাজে লাগিয়ে সেনার নজর এড়িয়ে কাঁটাতার পেরোনর ছক কষছে জঙ্গিরা।