তিরুওনন্তপুরম: খুব শীঘ্রই বড় বিস্ফোরণের পরিকল্পনা করেছিল। ভারতের মাটিতে আত্মঘাতী হামলা চালিয়ে শহিদ তকমা অর্জনের সেই বৃহত্তর পরিকল্পনা ভেস্তে দিল জাতীয় তদন্তকারী সংস্থা বা এনআইএ কর্তারা।

গ্রেফতার করা হয়েছে জঙ্গিবাদে উদ্বুদ্ধ রিয়াস আবুবাকারকে। যার সঙ্গে ইসলামিক স্টেট সহ একাধিক জঙ্গি সংগঠনের প্রত্যক্ষ যোগ ছিল বলে জানিয়েছে পুলিশ। সোমবার তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। জেরায় নিজের জঙ্গি যোগের কথা স্বীকার করে নিয়েছে রিয়াস

২৯ বছর বয়সী রিয়াস দক্ষিণের রাজ্য কেরলের পালাক্কড়ের বাসিন্দা। শ্রীলঙ্কা বিস্ফোরণের পরে কেরলে অভিযান চালায় এনআইএ। কারণ শ্রীলঙ্কা বিস্ফোরবের অন্যতম পাণ্ডা জাহারিন হাসিম দীর্ঘ দিন ভারতে ছিল। তার জঙ্গিবাদের জাল কতদূর বিস্তৃত তা জানতেই সোমবার কেরলের কাসারগড় এবং পালাকড়ে অভিযান চালায় এনআইএ।

সেই অভিযানেই রিয়াসকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জনিয়েছে এনআইএ। তাকে জেরা করে উঠে এসেছে চাঞ্চল্যকর নানাবিধ তথ্য। জানা গিয়েছে, আত্মঘাতী জঙ্গি জাহারান হাসিমের প্রতি অত্যন্ত অনুপ্রাণিত হয়েছিল রিয়াস। নিয়মিত তার বক্তব্য শুনতো মন দিয়ে। একই সঙ্গে বিতর্কিত ধর্ম প্রচারক জাকির নায়েকের বক্তব্য শোনাও তার অভ্যাস ছিল বলে জানিয়েছে রিয়াস।

২০১৬ সালে কেরলের কাসারগড় থেকে জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেটের সঙ্গে যোগ সাজশের অভিযোগে ১৫ জন ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়। যাদের মধ্যে দু’জনের সঙ্গে বিশেষ সখ্যতা ছিল রিয়াসের। সেই দুই ব্যক্তি হল আব্দুল খায়ুম এবং আবু খালিদ। তাদের সঙ্গে সিরিয়া যাওয়ার পরিকল্পনা করেছিল রিয়াস।

সিরিয়া না গেলেও আইএসের ভাবধারায় বিশেষভাবে অনুপ্রাণিত হয়েছিল রিয়াস। যার উপরে ভিত্তি করেই খুব শীঘ্রই কেরলে বড় ধরনের আত্মঘাতী হামলা চালানোর পরিকল্পনা করেছিল সে। কিন্তু সেই পরিকল্পনা বাস্তবায়িত হওয়ার আগেই তাকে গ্রেফতার করেছে এনআইএ। আজ মঙ্গলবার তাকে আদালতে তোলা হবে।