শ্রীনগর: প্রজাতন্ত্র দিবসের ঠিক আগে জম্মু-কাশ্মীর থেকে গ্রেফতার করা হল ৫ জইশ জঙ্গিকে। ২৬ জানুয়ারির আগে ভারতে বড়সড় নাশকতার ছক কষেছিল পাক মদতপুষ্ট জইশ জঙ্গিরা। ধৃত জঙ্গিদের কাছ থেকে বিপুল পরিমাণে বিস্ফোরক উদ্ধার করা হয়েছে।

এর আগেও ভারতে একাধিক বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে পাকিস্তানের মদতপুষ্ট জইশ-এ-মহম্মদ জঙ্গিরা। কাশ্মীরের পুলওয়ামায় গত বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে সেনা কনভয়ে হামলা চালিয়েছিল এই জইশ জঙ্গিরাই। অতর্কিতে চালানো সেই হামলায় ৪০ সিআরপিএফ জওয়ান নিহত হয়েছিলেন।

গোপন সূত্রে খবর পেয়ে এবার কাশ্মীরে ঘাঁটি গেড়ে থাকা ৫ জইশ জঙ্গিকে গ্রেফতার করল শ্রীনগর পুলিশ। ধৃত ৫ জঙ্গির নাম, আইজাজ আহমেদ শেখ, উমর হামিদ শেখ, ইমতিয়াজ আহমেদ চিকলা, সাহিল ফারুখ ও নাসির আহমেদ মীর। ৫ জঙ্গিকে গ্রেফতার করা বড়সড় সাফল্য বলেই মনে করছে শ্রীনগর পুলিশ। জম্মু -কাশ্মীরের ডিজি দিলবাগ সিং জানিয়েছেন, উপত্যকায় বড়সড় বিস্ফোরণের ছক কষেছিল জইশ জঙ্গিরা। গোপ সূত্রে খবর পেয়ে অভিয়ান চালিয়ে জঙ্গিদের গ্রেফতার করা হয়েছে।

ধৃত জঙ্গিদের কাছ থেকে বিপুল পরিমাণ বিস্ফোরক উদ্ধার করা হয়েছে। উদ্ধার হয়েছে ১৪০টিরও বেশি জিলেটিন স্টিক, ৪০টি ডিটোনেটর। ধৃত জঙ্গিরা এর আগেও জম্মু কাশ্মীরে ঘটে যাওয়া কমপক্ষে দুটি বিস্ফোরণে যুক্ত বলে দাবি করেছে পুলিশ। চলতি মাসের ৮ তারিখ কাশ্মীরের হাবাক ক্রসিংয়ের কাছে কম ক্ষমতাসম্পন্ন একটি বিস্ফোরণ হয়। সেই বিস্ফোরণে জখমও হন স্থানীয় বেশ কয়েকজন। তারও আগে ২০১৯-এর ২৬ নভেম্বর কাশ্মীর বিশ্ববিদ্যালয়ের স্যার সৈয়দ গেটের সামনে একটি বিস্ফোরণ হয়েছিল। এই দুটি বিস্ফোরণেই ধৃত ৫ জঙ্গির যোগ রয়েছে বলে দাবি শ্রীনগর পুলিশের।

সম্প্রতি সূত্র মারফত একটি খবর পায় শ্রীনগর পুলিশ। তারই ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে প্রথমে গ্রেফতার করা হয় দুই জইশ জঙ্গি আইজাজ আহমেদ শেখ ও উমর হামিদ শেখকে। জেরায় ৮ জানুয়ারি ও ২০১৯-এর ২৬ নভেম্বরের বিস্ফোরণে যুক্ত থাকার কথা স্বীকার করে নেয় ধৃত জঙ্গিরা। দফায় দফায় তাদের জেরা করে মেলে বাকি আরও ৩ জঙ্গির হদিশ। গ্রেফতার করা হয় জইশ জঙ্গি ইমতিয়াজ আহমেদ চিকলা, সাহিল ফারুখ ও নাসির আহমেদ মীরকে।