এগরা: এগরায় ছোট নলগেড়িয়ার গ্রামের এক নববধু ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধার ঘিরে ছড়াল ব্যাপক চাঞ্চল্য।

মৃতার শ্বশুরবাড়ির পক্ষ থেকে আত্মহত্যা বলে দাবি করা হয়েছে। যদিও মৃতার বাপের বাড়ি লোকের খুনের অভিযোগ তুলেছেন।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে যে মৃত মিতালি পণ্ডা (১৯)। সাত মাস আগে অনিমেশ পণ্ডার সঙ্গে মিতালি বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে স্বামী কার্য সুত্রে বাইরে থাকত।

মঙ্গলবার সাত সকালে শ্বশুরবাড়িতে গৃহবধূর ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধার হয়। এগরা থানার পুলিশ মৃতদেহটি উদ্ধার করে কাঁথি মহাকুমা হাসপাতালের ময়না তদন্তের পাঠিয়েছে।

মৃত মিতালির বাবা অশোক পণ্ডা অভিযোগ করে বলে তার মেয়েকে খুন করে আত্মহত্যা বলে চালানোর চেষ্ঠা করে। তিনি আরও অভিযোগ করে বলেন আমার মেয়েকে করে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে দিয়েছে ওর শ্বাশুড়ি। মেয়ে পা মাটিতে লেগে ছিল বলে দাবি। এই ঘটনার মৃতার বাপের বাড়ি থেকে কোন অভিযোগ দায়ের হয়নি।