স্টাফ রিপোর্টার, জলপাইগুড়ি : জলপাইগুড়িতে আলোর উৎসবে মন্দির আর মসজিদ মিলেমিশে একাকার। জলপাইগুড়ি শহরের অন্যতম প্রাচীন মসজিদ ৪ নং গুনটির কাছে কালু সাহেবের মাজার। আর এই মসজিদ লাগোয়া শহরের অন্যতম নজরকাড়া সর্বজনীন কালী পুজো দাদা ভাই ক্লাবের পূজা মণ্ডপ। এই পুজো কমিটির তরফেই প্রাচীন এই মসজিদকেও আলোক মালায় সাজানো হয়েছে।

দাদা ভাই ক্লাবের সম্পাদক তপন বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘আজ থেকে ২০ বছর আগে আমাদের ক্লাবের কালী পুজো কালু সাহেবের মাজারের পুকুরেই হতো। এই মসজিদ আমাদের কাছে সম্প্রীতির অন্যতম পীঠস্থান। এখন আমাদের পুজোর মণ্ডপ মসজিদ থেকে ঢিল ছোঁড়া দূরত্বে হলেও আমরা এই মসজিদকে আলো দিয়ে সাজিয়ে তুলি।’

আরও পড়ুন : আজও কালী মূর্তির পায়ে শেকল বাঁধা হয় এখানে

একই ভাবে মসজিদ কমিটিও সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের উৎসবে এই মসজিদ লাগোয়া শিব মন্দিরকেও আলো দিয়ে সাজাতে উদ্যোগী হয়। কালু সাহেবের মাজার পরিচালন কমিটির অন্যতম কর্মকর্তা পল হাসান বলেন, ‘আমাদের এই মসজিদ সর্ব ধর্মের এক মিলনস্থল। সৌভ্রাতৃত্বের বার্তা ছড়িয়ে দিতে আমরা এখানে সবাই মিলে মিশে একাকার।’

এই এলাকার তথা জলপাইগুড়ি বাসিন্দারাও এই বিষয়ে যথেষ্ট গর্ব অনুভব করেন বলে জানান। জাতি ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষার বিষয়ে কালু সাহেবের মাজার পরিচালন কমিটি এবং দাদা ভাই ক্লাবের সদস্যদের ভূমিকার প্রশংসা করেন এলাকার মানুষেরা তথা জলপাইগুড়িবাসী।