হায়দরাবাদ: ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত লকডাউনের ঘোষণা করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ঘোষণা অনুযায়ী, ১৪ এপ্রিলেই সেই লকডাউন শেষ হয়ে যাচ্ছে। কিন্তু আক্রান্তের সংখ্যা যেভাবে বাড়ছে, তাতে লকডাউন শেষ হবে কিনা, তা নিয়ে জল্পনা তৈরি হয়েছে।

যদিও এখনও সরকারের তরফে কিছু জানানো হয়নি, তবে পরিস্থিতি দেখেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে মনে করা হচ্ছে।

সোমবার তেলেঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রী কে চন্দ্রশেখর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কাছে আর্জি জানিয়েছেন যাতে লকডাউন বাড়ানো হয় ৩ জুন পর্যন্ত।

বিসিজি-র একটি রিপোর্টে বলা হয়, ৩ জুন পর্যন্ত লকডাউন বাড়ালে তা ভারতের জন্য ভালো হবে। আর সেই রিপোর্টের ভিত্তিতেই এমন আর্জি জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

এখনও পর্যন্ত তেলেঙ্গানায় করোনায় আক্রান্ত হয়েছে ৩২১ জন। এর মধ্যে অন্তত ২৪৩ জন হয় নিজামুদ্দিন মার্কাজে গিয়েছিলেন অথবা, সেখানকার কোনও লোকের সংস্পর্শে এসেছিলেন।

এদিকে, করোনা পরিস্থিতি সামাল দিতে একধাক্কায় ৩০ শতাংশ বেতন কমিয়ে দেওয়া হল সাংসদদের। সোমবার সংসদে এই সংক্রান্ত একটি অর্ডিন্যান্স পাশ হয়েছে।

করোনা পরিস্থিতির জন্য আর্থিক ধাক্কার মুখে পড়তে চলেছে গোটা বিশ্ব। ভারতও তার ব্যতিক্রম নয়। আর সেই পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার জন্য সবরকমের চেষ্টা জারি রেখেছে সরকার। আর এটাও তারই একটা পদক্ষেপ। বেতন কমছে সব রাজ্যের রাজ্যপালদের।

প্রত্যেকেই নিজেদের ইচ্ছেয় বেতন কমিয়েছেন। শুধু তাই নয়, সাংসদ তহবিলের টাকা দেওয়ার স্কিম আপাতত বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে। আপাতত ২ বছরের জন্য স্থগিত করা হচ্ছে। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকর জানিয়েছেন, সাংসদ তহবিলের ৭৯০০ কোটি টাকা যাবে করোনা মোকাবিলার ফান্ডে।

আগামী ১ এপ্রিল থেকে কার্যকর হতে চলেছে সেই সিদ্ধান্ত।

জস্বাস্থ্য মন্ত্রকের তথ্য অনুযায়ী দেশে আক্রান্তের সংখ্যাও ইতিমধ্যে ৪০০০ পার করে ।