হায়দরাবাদ: আবারও ধর্ষণ করে খুন হায়দরাবাদে। ২৯ বছরের এক মহিলার পচাগলা দেহ উদ্ধার করা হয়েছে তেলেঙ্গানার মেদাক জেলা থেকে।

পুলিশের তরফ থেকে জানা গিয়েছে খুন করার আগে ওই মহিলাকে ধর্ষণ করা হয়েছিল। জানা গিয়েছে ৫ ডিসেম্বর থেকে ওই মহিলা নিখোঁজ ছিলেন।

প্রাথমিক তদন্তের পরে জানা গিয়েছে এক জেল খাটা আসামি মুক্তি পেয়ে বাইরে এসে এই ধরণের কাজ করেছে। তবে কি কারণে এই খুন করেছে সে বিষয়ে কিছু জানা যায়নি।

পুলিশের তরফ থেকে জানা গিয়েছে ৫ ডিসেম্বর ওই মহিলা নিখোঁজ হওয়ার পরেই স্থানীয় থানাতে বিস্তারিত জানানো হয়েছিল। তদন্তে নেমে এক সপ্তাহ পরে ওই মহিলার পচাগলা দেহ উদ্ধার করেছিল স্থানীয় পুলিশ। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ৩০৭ এবং ৩৭৫ ধারায় মামলা করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, এর আগে হায়দরাবাদে ডাক্তার তরুণীকে গণধর্ষণ করে জ্বালিয়ে দেওয়ার পর প্রতিবাদের আগুন জ্বলেছিল দেশে। প্রতিবাদে গলা মিলিয়েছিলেন সাধারণ মানুষ থেকে শুরু করে তারকারাও। সকলে মিলে একটাই আবেদন- দোষীদের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি।

তারপরে ডিসেম্বরের ৬ তারিখে পুলিশি এনকাউন্টারে ওই ঘটনায় অভিযুক্ত চারজনের মৃত্যু হওয়ার পর থেকে রাতারাতি তারকা হয়ে গিয়েছিলেন তেলেঙ্গানা পুলিশ। অনেক বুদ্ধিজীবীরাই পুলিশি পদক্ষেপের বিরুদ্ধে প্রশ্ন তুললেও রীতিমত পুষ্প বৃষ্টি করে তাঁদের অভ্যর্থনা জানিয়েছিল সাধারণ মানুষ।

এছাড়াও রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব থেকে সিলভার স্ক্রিনের তারকারা প্রায় প্রত্যেকেই কিন্তু বাহবা জানাচ্ছেন হায়দরাবাদ পুলিশকে। পিছিয়ে ছিল না ক্রীড়াজগতও। হায়দরাবাদ পুলিশের কর্মকান্ডে যারপরনাই খুশি ঘরের মেয়ে সাইনা নেহওয়াল। এনকাউন্টারের ঘটনার পর অলিম্পিক পদকজয়ী হায়দরাবাদি এই শাটলার তাঁর মাইক্রোব্লগিং সাইটে লিখেছিলেন, ‘দারুণ কাজ হায়দরাবাদ পুলিশ। আমরা আপনাদের কুর্নিশ জানাই।’