নয়াদিল্লি: মোবাইল নম্বর পোর্ট করার নিয়ম চালু হয়েছে অনেক আগেই। এবার সেই নিয়ম হল আরও সহজ। নতুন নিয়ম আলু করল টেলিকম রেগুলেটরি সংস্থা TRAI.

এতদিন পর্যন্ত প্রক্রিয়ায় লেগে যেত প্রায় ১০ থেকে ১২ দিন। শুধু এই ঝামেলা এড়াতেই অনেক গ্রাহক ইচ্ছা থাকলেও বদলাতে পারতেন না সার্ভিস প্রোভাইডার। সেই সমস্যা দূর করতেই নতুন পদক্ষেপ করল ট্রাই। মোবাইল নম্বর ‘পোর্টিং’-এর প্রক্রিয়াকে আরও সহজ ও গতিশীল করার জন্য নতুন নির্দেশিকা আনা হল।

ট্রাই-এর এই নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, ‘ইনফ্রা লাইসেন্সড সার্ভিস এরিয়া’ বা একই সার্কেলে মোবাইল নম্বর ‘পোর্টিং’ করতে হবে দু’দিনের মধ্যে। যদি মোবাইল নম্বর অন্য সার্কেলের হয়, তা হলে পোর্টিং-এর ক্ষেত্রে সর্বাধিক চার দিন সময় নেওয়া যাবে। ট্রাইয়ের পক্ষ থেকে এই নির্দেশিকা জারি করে বলা হয়েছে, যদি কোনও সার্ভিস প্রোভাইডার বৈধ কারণ ছাড়া পোর্ট করার আবেদন বাতিল করে দেন বা সহযোগিতা না করেন, তা হলে প্রত্যেকটি ক্ষেত্রের জন্য ওই সার্ভিস প্রোভাইডারকে ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা হবে৷

ট্রাইয়ের নির্দেশিকা অনুযায়ী, ইউনিক পোর্টিং কোডের বৈধতার সময়সীমা ১৫ দিন থেকে কমিয়ে ৪ দিন করা হয়েছে। তবে জম্মু-কাশ্মীরে এবং অসম-সহ উত্তর-পূর্ব ভারতে আগের মতোই এই সময়সীমা ১৫ দিন পর্যন্ত বজায় থাকবে।

শুধু ব্যক্তিগত স্তরে মোবাইল নম্বর পোর্ট করার ক্ষেত্রেই যে ট্রাই নিয়ম বদল করেছে, তা নয়৷ কর্পোরেট কানেকশনের ক্ষেত্রেও বদল এসেছে নিয়মে৷ আগে কর্পোরেট কানেকশন ব্যবহারকারী সংস্থার একটি অথরাইজেশন লেটারের ভিত্তিতে ৫০টি নম্বর একসঙ্গে পোর্ট করা যেত। এখন নতুন নিয়মে একটা চিঠির প্রেক্ষিতে ১০০টি নম্বর পোর্ট করা যাবে৷