ঢাকা: জটিলতা কাটবে দ্রুত৷ আটকে থাকা চুক্তিতে ধাক্কা মারবে তিস্তার স্রোত৷ এই নদীর জল বণ্টন নিয়ে ঢাকা-নয়াদিল্লির মধ্যে দীর্ঘ প্রতীক্ষিত চুক্তি সম্পাদনের প্রহর গুনছে বাংলাদেশ৷ ক্ষমতায় থাকা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের জানিয়েছেন, ভারতে বিজেপি ফের ক্ষমতায় আসায় তিস্তা সমস্যা সহ দুই দেশের মধ্যে অমীমাংসিত সমস্যাগুলোর সমাধান হবে৷

তিস্তা জল-বণ্টন চুক্তি সম্পাদন করতে মুখিয়ে রয়েছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা৷ গত জাতীয় নির্বাচনের আগে তাঁর নয়াদিল্লি সফর ছিল বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ৷ হাসিনার সেই সফরে তিস্তা নদীর জলবণ্টন চুক্তিতে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার সায় দিলেও সেটি আটকে রয়েছে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আপত্তির কারণে৷

তিস্তা নদী সিকিম থেকে যাত্রা শুরু করে পশ্চিমবঙ্গ হয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে৷ আন্তর্জাতিক চরিত্র পাওয়ায় ভারতের মতো বাংলাদেশের দাবি এই নদীর জল৷ মমতার যুক্তি, তিস্তার জলধারা তেমন থাকেই না৷ ফলে কোনও অবস্থায় জল দেওয়া সম্ভব নয়, গরমের সময় তো নয়ই৷ তিস্তার বদলে তোরসা নদীর জল নিতে তিনি বাংলাদেশ সরকারকে অনুরোধ করেন৷ দিল্লিতে শেখ হাসিনা-নরেন্দ্র মোদী ও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মধ্যে আলোচনাতে জট খোলেনি৷

ভারতে লোকসভা নির্বাচনের আগে থেকে মমতা-মোদীর রাজনৈতিক লড়াই হয়েছে প্রবল৷ নির্বাচনে বিপুল জয় নিয়ে ফের ক্ষমতায় এসেছে বিজেপি তথা এনডিএ৷ আর পশ্চিমবঙ্গেও বিরাট ধাক্কা খেয়েছেন মমতা৷ এখানেও বেড়েছে বিজেপির শক্তি৷

ভারতের নির্বাচন প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক জানিয়েছেন- ফলাফল বেরিয়ে গেছে৷ এবার দুই দেশের মধ্যে আটকে থাকা কিছু গুরুত্বপূর্ণ কূটনৈতিক পদক্ষেপ এবার সমাধান হবে৷ ঢাকায় ধানমন্ডির প্রেস ব্রিফিং করেন তিনি৷ অন্যদিকে ঢাকা-নয়াদিল্লি কূটনৈতিক মহলে তিস্তা জলবন্টণ চুক্তি সম্পাদন নিয়ে গুঞ্জন শুরু হয়েছে৷ নরেন্দ্র মোদীকে বাংলাদেশ সফরে আসার আমন্ত্রণ জানিয়েছেন শেখ হাসিনা৷