নটিংহ্যাম: নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে বিশ্বকাপের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচের আগে টিম ইন্ডিয়াকে ঘিরে একটাই প্রশ্ন, শিখর ধাওয়ানের বিশ্বকাপ অভিযান কী এখানেই শেষ? উৎসুক সমর্থকদের উত্তরটা দিয়ে গেলেন টিম ইন্ডিয়ার ব্যাটিং কোচ সঞ্জয় বাঙ্গার৷ যদিও অনুরাগীদের আশ্বস্ত করতে পারলেন না তিনি৷ শুধু টিম ম্যানেজমেন্টের তরফ ধাওয়ানকে নিয়ে একটা আপডেট দিলেন বাঙ্গার৷

নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে বিশ্বকাপের তৃতীয় ম্যাচের আগের দিন সাংবাদিক সম্মেলনে এসে বাঙ্গার বলেন, ধাওয়ানকে নিয়ে টিম ম্যানেজমেন্ট তড়িঘড়ি কোনও সিদ্ধান্ত নিতে চায় না৷ বরং পরিস্থিতির উপর নজর রেখে ধীরে সুস্থে সমাধানসূত্র খুঁজে বার করাই লক্ষ্য দলের৷

বাঙ্গার বলেন, ‘শিখর ধাওয়ানের মতো দলের গুরুত্বপূর্ণ ক্রিকেটারকে বিশ্বকাপ থেকে এভাবে তড়িঘড়ি দূরে সরিয়ে দেওয়া সম্ভব নয়৷ পরিস্থিতি অনুযায়ী প্রয়োজন পড়লে তবেই ওর পরিবর্ত চাওয়া হবে৷ আপাতত দিন ১০-১২ দেখা হবে৷ তার পরেই চূড়ান্ত কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে৷’

ধাওয়ানের ব্যাকআপ হিসাবে ঋষভ পন্তকে ডেকে পাঠানোর প্রসঙ্গে ভারতের ব্যাটিং কোচ বলেন, ‘প্রয়োজন পড়লে ঋষভকে স্কোয়াডে ঢুকিয়ে নেওয়া হবে৷ তবে তার আগে স্ট্যান্ড-বাই ক্রিকেটার দলের সঙ্গে থাকা ভালো৷ অন্তত ইংল্যান্ডের পরিবেশে প্র্যাকটিস সেরে রাখতে পারবে৷’

নিউজিল্যান্ড ম্যাচে ধাওয়ানের বদলি নিয়ে বাঙ্গার জানান, ‘ধাওয়ান না থাকায় লোকেশ রাহুল অবধারিতভাবে টপঅর্ডারে ব্যাট করবে৷ রোহিতের সঙ্গে ওপেন করতে পারে লোকেশ৷ মিডল অর্ডারে দলের কাছে একাধিক বিকল্প রয়েছে৷ দীনেশ কার্তিক অথবা বিজয় শঙ্কর, যাকে যথাযথ মনে হবে, সেই মতো তাকে দলে নেওয়া হবে৷ ম্যাচের আগে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে কে দলে ঢুকবে৷’

টিম ম্যানেজমেন্ট অবশ্য তৈরি রাখছে কার্তিক ও বিজয় শঙ্কর দু’জনকেই৷ চার নম্বরে না হলেও লোয়ার মিডল অর্ডারে টিম ইন্ডিয়ার প্রয়োজন হবে কোনও একজনকে৷ ব্যাটিং অর্ডার নির্ধারণ করা হবে ম্যাচর পরিস্থিতি অনুযায়ী৷ কুম্বলের মতো টিম ইন্ডিয়ার প্রাক্তন অধিনায়ক মনে করেন চার নম্বরে নতুন কাউকে না পাঠিয়ে ধোনিকে নামানো উচিত৷

বৃষ্টির জন্য নটিংহ্যামে একটা প্র্যাকটিস সেশন নষ্ট হলেও বুধবার অপশনার নেট সেশনে অংশ নেন বিরাট কোহলিরা৷ ট্রেন্ট ব্রিজের মেঘাচ্ছন্ন আবহাওয়ার বিষয়টি অফিসিয়ার টুইটার অ্যাকাউন্টে জানান দেয় বিসিসিআই৷ এমন বৃষ্টিস্নাত ট্রেন্ট ব্রিজে বেশ কিছুক্ষণ নেটে ব্যাটিং করেন রোহিত, কোহলি, লোকেশ, কার্তিকরা৷ শুরুতে ইন্ডোরে গা ঘামানোর পর মাঠে নেমে ব্যাটসম্যানরা নেট বোলারদের সামলালেও বিশ্রাম দেওয়া হয় দলের প্রধান বোলারদের৷