ম্যাঞ্চেস্টার: ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে ভারতের বিরুদ্ধে বৃষ্টি বিঘ্নিত সেমিফাইনালের প্রথম দিনে ৪৬.১ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ২১১ রান তুলেছিল নিউজিল্যান্ড৷ বুধবার রিজার্ড ডে’তে বাকি ৩.৫ ওভারে ৩ উইকেট হারিয়ে আরও ২৮ রান যোগ করে কিউয়িরা৷ অর্থাৎ টস জিতে প্রথমে ব্যাট করে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ২৩৯ রান তোলে নিউজিল্যান্ড৷ সেমিফাইনাল জিতে ফাইনালের টিকিট নিশ্চিত করতে ভারতের দরকার ২৪০ রান৷

আরও পড়ুন: ধোনির সমালোচনা যুক্তিযুক্ত নয়: কপিল

ভুবনেশ্বর কুমার গত দিনের অসমাপ্ত ওভারের বাকি পাঁচটি বলে ৬ রান খরচ করেন৷ পরের ওভারে বল করতে এসে বুমরাহ দেন ৮ রান৷ তবে শেষ বলে রবীন্দ্র জাদেজার দুরন্ত থ্রো’য়ে রানআউট হন রস টেলর৷ ফিরে যাওয়ার আগে ৯০ বলে ৭৪ রান করেন টেলর৷ ৪৯তম ওভারে ৭ রানের বিনিময়ে টম লাথাম (১১ বলে ১০) ও ম্যাচ হেনরির (২ বলে ১) উইকেট তুলে নেন ভুবনেশ্বর৷ শেষ ওভারে বুমরাহ মাত্র ৭ রান উপহার দেন নিউজিল্যান্ডকে৷ মিচেল স্যান্টনার ৬ বলে ৯ ও ট্রেন্ট বোল্ট ৩ বলে ৩ রান করে অপরাজিত থাকেন৷

আরও পড়ুন: ওল্ড ট্র্যাফোর্ডের পিচকে তুলোধনা দুই ব্রিটিশ প্রাক্তনীর

মঙ্গলবার বৃষ্টিতে ম্যাচ বন্ধ হওয়ার আগে ভারতীয় বোলারদের দাপটে কার্যত কোণঠাসা ছিল নিউজিল্যান্ড৷ শুরু থেকেই নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে কিউয়িদের বেঁধে রাখে বুমরাহ, ভুবনেশ্বররা৷ গাপ্তিলকে ১ রানে ফিরিয়ে দেন বুমরাহ৷ নিকোলসকে ২৮ রানে বোল্ড করেন জাদেজা৷ টেলরকে সঙ্গে নিয়ে বিপর্যয় রোধের চেষ্টা করেন উইলিয়ামসন৷ সফল হলেও রান তোলার গতি বাড়াতে ব্যর্থ হন দুই অভিজ্ঞ কিউয়ি ব্যাটসম্যান৷

আরও পড়ুন: ওল্ড ট্র্যাফোর্ডের গ্যালারিতে ক্রিকেটঈশ্বরের আরাধনা

উইলিয়ামসন ৯৫ বলে ৬৭ রান করে চাহালের বলে আউট হন৷ জিমি নিশাম ১৮ বলে ১২ রান করে হার্দিক পান্ডিয়ার সিকার হন৷ কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম ১০ বলে ১৬ রান করে ভুবনেশ্বরকে উইকেট দেন৷ সব মিলিয়ে ভারতের হয়ে ৪৩ রানের বিনিময়ে ৩টি উইকেট নেন ভুবনেশ্বর৷ একটি করে উিকেট দখল করেন বুমরাহ, পান্ডিয়া, জাদেজা ও চাহাল৷ দলের হয়ে সব থেকে কৃপণ বোলিং করার পাশাপাশি দুরন্ত ফিল্ডিং করেন জাদেজা৷ উইলিয়ামসন ও লাথামের ক্যাচ ধরার পাশাপাশি টেলরকে দুরন্ত ক্ষিপ্রতায় রানআউট করেন তিনি৷