নাগপুর: মহম্মহ নঈমের একক লড়াই ব্যর্থ করে টি-২০ সিরিজ জিতল ভারত৷ জামথায় দীপক চাহারের আগুনে বোলিংয়ে ঝলসে যায় টাইগাররা৷ দোসর হিসাবে নবাগত শিবম দুবে দলের জয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নেন৷ তার আগে ব্যাট হাতে লোকেশ রাহুল ও শ্রেয়স আইয়ারের যুগলবন্দি ভারতের জয়ের মঞ্চ প্রস্তুত করে বিদর্ভ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন স্টেডিয়ামে৷

নাগপুরে সিরিজের তৃতীয় তথা শেষ টি-২০ ম্যাচে টস জিতে ভারতকে প্রথমে ব্যাট করতে পাঠায় বাংলাদেশ৷ নির্ধারিত ২০ ওভারে ৫ উইকেটের বিনিময়ে ১৭৪ রান তোলে টিম ইন্ডিয়া৷ অনবদ্য হাফসেঞ্চুরি করেন লোকেশ রাহুল ও শ্রেয়স আইয়ার৷ শফিউল ইসলাম ও সৌম্য সরকার বল হাতে নজর কাড়েন৷

আরও পড়ুন: ক্রিকেট থেকে নির্বাসিত শাকিব পা-মেলালেন ফুটবলে

জবাবে ব্যাট করতে নেমে বাংলাদেশ ১৯.২ ওভারে ১৪৪ রানে অল-আউট হয়ে যায়৷ মহম্মদ নঈম অনবদ্য হাফ-সেঞ্চুরি করলেও বাকিরা কেউই তাঁকে যথাযোগ্য সঙ্গত করতে পারেননি৷ বল হাতে দীপক চাহার হ্যাটট্রিক-সহ বিশ্বরেকর্ড করেন৷ ভারত ৩০ রানে ম্যাচ জেতে জামথায়৷ একই সঙ্গে তিন ম্যাচের টি-২০ সিরিজ ২-১ ব্যবধানে জিতে নেয় টিম ইন্ডিয়া৷

ভারত ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারেই রোহিত শর্মার উইকেট হারিয়ে বসে৷ মাত্র ২ রান করে শফিউল ইসলামের বলে বোল্ড হন হিটম্যান৷ শিখর ধাওয়ান ৪টি বাউন্ডারির সাহায্যে ১৬ বলে ১৯ রান করে সাজঘরে ফেরেন৷ ধাওয়ানের উইকেটটিও তুলে নেন শফিউল৷ লোকেশ রাহুল ৭টি বাউন্ডারির সাহায্যে ৩৫ বলে ৫২ রান করে উইকেট দিয়ে আসেন৷

আরও পড়ুন: সুপার ওভারে বাজিমাৎ করে টি-টোয়েন্টি সিরিজ জিতল ইংল্যান্ড

আল-আমিনের বলে লিটনের হাতে ধরা দেন লোকেশ৷ শুরুতেই স্লিপে জীবন দান পাওয়া শ্রেয়স আইয়ার ৬২ রানের ঝোড়ো ইনিংস খেলে দলকে বড় রানের দিকে টেনে নিয়ে যান৷ ৩৩ বলের ইনিংসে শ্রেয়স ৩টি চার ও ৫টি ছক্কা মারেন৷ শ্রেয়সের উইকেটটি তুলে নেন সৌম্য সরকার৷ ঋষভ পন্ত আরও একবার ব্যাট হাতে ব্যর্থ হন৷ মাত্র ৬ রান করে সৌম্যর বলে বোল্ড হন তিনি৷ মণীশ পান্ডে ৩টি বাউন্ডারির সাহায্যে ১৩ বলে ২২ ও শিবম দুবে ৮ বলে ৯ রান করে অপরাজিত থাকেন৷

বাংলাদেশ মাত্র ১২ রানের মধ্যে লিটন দাস (৯) ও সৌম্য সরকারের (০) উইকেট হারিয়ে বসে৷ ইনিংসের তৃতীয় ওভারের চতুর্থ ও পঞ্চম বলে পর পর দু’জনকে ফিরিয়ে দেন দীপক চাহার৷ হ্যাটট্রিকের সুযোগ থাকলেও সে যাত্রায় চাহারকে হতাশ করেন মহম্মদ মিঠুন৷

আরও পড়ুন: দুই ওপেনারের দাপটে একতরফা জয় ভারতের

মিঠুনকে সঙ্গে নিয়েই মহম্মদ নঈম তৃতীয় উইকেটের জুটিতে ৯৮ রান যোগ করে প্রাথমিক বিপর্যয় রোধ করেন৷ মিঠুন ব্যাক্তিগত ২৭ রানে আউট হওয়ার পরেই ধস নামে বাংলাদেশ ইনিংসে৷ তাঁর উইকেটটিও পকেটে পোরেন চাহার৷ পরের ওভারে বল করতে এসে প্রথম বলেই মুশফিকুর রহিমকে বোল্ড করেন শিবম দুবে৷ মুশফিক খাতা খুলতে পারেননি৷

১৬তম ওভারের তৃতীয় ও চতুর্থ বলে দুবে পর পর আউট করেন নঈম ও আফিফ হোসেনকে৷ নঈম ১০টি চার ও ২টি ছক্কার সাহায্যে ৪৮ বলে ৮১ রান করে ক্রিজ ছাড়েন৷ আফিফ আউট হন শূন্য রানে৷ ১৭ তম ওভারের পঞ্চম বলে মাহমুদুল্লাহকে (৮) বোল্ড করেন যুবেন্দ্র চাহাল৷ এটি তাঁর আন্তর্জাতিক টি-২০ কেরিয়ারের ৫০তম শিকার৷

আরও পড়ুন: নিজেকে কোহলি দাবি করে ব্যাটে ঝড় ওয়ার্নার কন্যার, ভাইরাল ভিডিও

১৮তম ওভারের শেষ বলে এবং ২০তম ওভারের প্রথম দু’টি বলে দীপক চাহার আউট করেন যথাক্রমে শফিউল ইসলাম (৪), মুস্তাফিজুর রহমান (১) ও আমিনূল ইসলামকে (৯) এবং প্রথম ভারতীয় হিসাবে আন্তর্জাতিক টি-২০ ক্রিকেটে হ্যাটট্রিকের কৃতিত্ব অর্জন করেন৷ চাহারের চূড়ান্ত বোলিং গড় দাঁড়ায় ৩.২-০-৭-৬৷ অর্থাৎ ৩.২ ওভার বল করে ৭ রানের বিনিময়ে ৬টি উইকেট দখল করেন দীপক৷ আন্তর্জাতিক ট-২০ ক্রিকেটে এটিই এখনও পর্যন্ত সোরা বোলিং পারফরম্যান্স৷ স্বাভাবিকভাবেই ম্যাচের সেরা হন চাহার৷ সিরিজ সেরাও তিনি৷