কলকাতা:  বছর ঘুরলেই বেতন বৃদ্ধি হবে রাজ্য সরকারি কর্মীদের। ষষ্ঠ বেতন কমিশনের সুপারিশ অনুযায়ী বেতন বাড়বে কর্মীদের। রাজ্য সরকারি কর্মীদের পাশাপাশি নয়া বছরে বেতন বাড়বে শিক্ষকদেরও। ইতিমধ্যে শিক্ষকদের বেতন বৃদ্ধি নিয়ে সরকারিভাবে বিজ্ঞপ্তি জারি করা হল। অতিথি শিক্ষক, আংশিক সময়ের শিক্ষক এবং চুক্তিভিত্তিক পূর্ণসময়ের শিক্ষকদের এক ছাতার তলায় আনা হয়েছে। নাম দেওয়া হয়েছে স্টেট এডেড কলেজ টিচার। সেই মতো বেতন বৃদ্ধিও করা হয়েছে তাদের।

এই বিষয়ে আগেই ঘোষণা করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এবার সরকারিভাবে বেতন বৃদ্ধির বিষয়ে বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হল নবান্নের তরফে। কোন স্তরের শিক্ষকের কত বেতন, অবসরকালীন অর্থ ইত্যাদি বিষয় উল্লেখ করা হয়েছে সেই বিজ্ঞপ্তিতে। প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, এই সব শিক্ষকদের যেহেতু নতুন নামকরণ করা হয়েছে, তাই তাঁদের সংশ্লিষ্ট কলেজের পরিচালন সমিতির তরফে নিয়োগপত্র দেওয়া হবে। তার জন্য ডিপিআই-এর অনুমোদনও প্রয়োজন রয়েছে। এই সব শিক্ষকদের নিযুক্ত করার জন্য নোশনাল শূন্য পদ তৈরি করা হবে।

এই তিন স্তরের শিক্ষক ৬০ বছর পর্যন্ত চাকরি করতে পারবেন। তবে যে কোনও পরিস্থিতিতে (কাজে অসন্তোষ, খারাপ রেকর্ড ইত্যাদি কারণে) তাঁদের চাকরি থেকে বরখাস্ত করতে পারবে পরিচালন সমিতি। এই শিক্ষকদের প্রয়োজনে অন্যত্র বদলিও করা যাবে। নয়া বেতনক্রম ১ জানুয়ারি ২০২০ থেকে কার্যকর হবে। এই নয়া আর্থিক সুবিধা পাবেন সেই সব শিক্ষক, যাঁরা চলতি বছরের ১৩ জুলাইয়ের আগে কর্মরত হয়েছেন।

ফাইল ছবি

বিকাশ ভবন সূত্রে জানা গিয়েছে, এই বিজ্ঞপ্তি জারি হওয়ার আগে এমন অনেক অতিথি শিক্ষক ছিলেন, যাঁরা একাধিক কলেজে পড়াতেন। সেক্ষেত্রে তাঁদের অপশন ফর্ম দেওয়া হবে। নির্দিষ্ট একটি কলেজে পড়াতে পারবেন, তাঁর নাম সেই ফর্মে দিতে হবে। বিজ্ঞপ্তি জারির পর আংশিক সময়ের শিক্ষক সংগঠন কুটাবের সাধারণ সম্পাদক গৌরাঙ্গ দেবনাথ বলেন, বিজ্ঞপ্তি জারির জন্য শিক্ষামন্ত্রী এবং মুখ্যমন্ত্রীকে অভিনন্দন। তবে সিনিয়র শিক্ষকদের অভিজ্ঞতার উপর জোর দেওয়া হলে ভালো হতো। সেটির দিকে নজর দেওয়ার জন্য মন্ত্রীকে আর্জি জানাব।