বাংলায় পার্শ্বশিক্ষকদের আন্দোলন

কলকাতা: রাজ্যে প্রাথমিক ও উচ্চ প্রাথমিকে কর্মরত পার্শ্বশিক্ষকদের একাধিক দাবিদাওয়া নিয়ে আন্দোলন চলছে৷ সল্টলেক বিকাশ ভবনের কাছে ফের অবস্থানে বিক্ষোভে বসেছেন শিক্ষক শিক্ষিকারা৷ প্রায় এক মাস ধরে চলছে আন্দোলন৷ এরই মধ্যে পার্শ্বশিক্ষকদের দাবিদাওয়ার বিষয়ে জানতে আজ বুধবার তাঁদের ডেকে পাঠান শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। সেই মতো এদিন বিকাশ ভবনে শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে দীর্ঘ বৈঠক চলে পার্শ্বশিক্ষকদের একটি প্রতিনিধি দলের৷ বৈঠক শেষে বাইরে বেরিয়ে সংগঠনের প্রতিনিধি দল জানান,আলোচনায় তারা সন্তুষ্ট৷ কিন্তু আন্দোলন প্রত্যাহার নিয়ে স্টিয়ারিং কমিটির বৈঠকে বসেন অনশন ও আন্দোলনরত পার্শ্ব শিক্ষকরা৷

বৈঠক শেষে পার্শ্বশিক্ষক ঐক্য মঞ্চের যুগ্ম আহ্বায়ক ভগীরথ ঘোষ জানান,শিক্ষামন্ত্রী বৈঠকে আমাদেরকে যে আশ্বাস দিয়েছেন,তা লিখিতভাবে পেলেই আন্দোলন প্রত্যাহার করা হবে৷ না পাওয়া পর্যন্ত পার্শ্বশিক্ষকদের অবস্থান আন্দোলন চলবে৷

অন্যদিকে বুধবারে বৈঠকে শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানান,পার্শ্ব শিক্ষকদের দাবিদাওয়াকে সহানুভূতির সঙ্গে দেখা হচ্ছে। পর্যাপ্ত টাকার অভাবেই দাবি মতো পার্শ্ব শিক্ষকদের বেতন কাঠামোয় আনা যাচ্ছে না৷ যদিও এর আগে শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেছিলেন, স্কুলে অনুপস্থিত থেকে আন্দোলন করলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে৷ স্কুলে তাদের অনুপস্থিতির জন্য ছাত্রছাত্রীদের পড়াশোনার ক্ষতি হচ্ছে৷ অনুপস্থিত পার্শ্বশিক্ষকদের শোকজ করারও সিদ্ধান্ত নেয় শিক্ষা দফতর।

ফাইল ছবি

এরপরেই পশ্চিমবঙ্গ সমগ্র শিক্ষা মিশনের রাজ্য প্রকল্প অধিকর্তা শুভাঞ্জন দাস গত ২৯ তারিখ সব জেলার ডিআইদের সার্কুলার পাঠিয়েছেন৷ তাতে বলা হয়েছে, গত ১১-২২ নভেম্বর পর্যন্ত যে সব পার্শ্বশিক্ষক আগাম না জানিয়ে বা বিনা অনুমতিতে স্কুলে অনুপস্থিত রয়েছেন, তাঁদের শোকজ করতে হবে৷ শুধু তাই নয়, শোকজের জবাব সন্তোষজনক না হলে, সেই সব পার্শ্বশিক্ষকদের তালিকা তাঁদের তালিকা বিকাশ ভবনে পাঠিয়ে দেওয়ার কথা বলা হয়েছে৷

সরকারি হুঁশিয়ারি সত্ত্বেও পিছু হটেনি আন্দোলনকারী পার্শ্বশিক্ষকরা৷ সল্টলেক সেন্ট্রাল পার্কের কাছে ১১ নভেম্বর থেকে আন্দোলনে বসেছেন পার্শ্বশিক্ষকরা৷ ঐক্য মঞ্চের যুগ্ম আহ্বায়ক ভগীরথ ঘোষ জানিয়েছিলেন, আমরা কলকাতা হাইকোর্টের অনুমোদন সাপেক্ষে এখানে অবস্থানে বসেছি। রাজ্য ও জেলা সমগ্র প্রকল্প আধিকারিকদের অগ্রিম জানিয়েই স্কুল বয়কটের ডাক দিয়েছি৷