প্রতীকী ছবি

কলকাতা: অবশেষে নরম চা বাগান মালিক পক্ষ। ৮০ হাজার শ্রমিকের আমরা অনশনের হুমকিতে পিছু হটতেই হল তাদের। সরকারের সঙ্গে ত্রিপাক্ষিক বৈঠকে ২০ শতাংশ হারেই পুজো বোনাস দেওয়ার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে। বৈঠকে ছিল চা শ্রমিকদের যৌথ মঞ্চ, বাগান মালিকপক্ষ, রাজ্য সরকার।

সেখানে ঠিক হয়, বোনাসের প্রথম ৬০ শতাংশ এখুনি ও বাকি ৪০ শতাংশ উৎসবের মধ্যেই প্রদান করতে হবে। এদিকে দাবি আদায়ের খবর কলকাতা থেকে পৌঁছে গেল দার্জিলিং, কালিম্পং ও ডুয়ার্সের সর্বত্র।

বোনাসের দাবি পুরোপুরি না মিটলে শনিবার থেকেই দার্জিলিং পার্বত্যাঞ্চল অচল করার হুমকি দিয়েছিল গোর্খা জনমুক্তি পরিষদ, চা শ্রমিক সংগঠনগুলি। চা শ্রমিকদের সংগঠন চিয়া কামান মজদুর ইউনিয়নের সম্পাদক তথা প্রাক্তন বাম সাংসদ সমন পাঠক জানান, বোনাসের দাবি পূরণ না হলে ৮৭টি বাগানের ৮০ হাজারের বেশি শ্রমিক কোনও উৎপাদনে অংশ নেবেন না। দাবি পূরণ করতে আমরণ অনশন শুরু করে দেন মোর্চা নেতা বিনয় তামাং। জল না খাওয়ায় ক্রমে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন তিনি। তাঁর চিকিৎসা হওয়ার কথা শিলিগুড়িতে।

পরিস্থিতি গুরুতর হয় দার্জিলিংয়ের বিজেপি সাংসদ রাজু বিস্তের মন্তব্য ঘিরে। তিনি বলেন বিনয় তামাং নাটক করছেন। ফলে ফের গরম হয়েছিল পাহাড়। সাংসদের কুশপুতুল দাহ করা হয় চকবাজার ও কালিম্পংয়ে। চা বাগান শ্রমিকদের ২০ শতাংশ হারে পুজো বোনাসের দাবিতে চলছিল আন্দোলন । এই দাবিতে পুজোর ঠিক মুখেই হয় ১২ ঘণ্টার ধর্মঘট।