চেন্নাই: গত বছরেই আশঙ্কা করা হয়েছিল ২০২০ সালের মধ্যে জল সঙ্কট দেখা দিতে পারে দেশের ২১টি শহরে, যাদের মধ্যে রয়েছে চেন্নাই৷ কিন্তু এই বছরেই গত কয়েকদিন ধরে চরম জল সঙ্কট দেখা দিয়েছে দক্ষিণ ভারতের এই শহরটিতে৷ যারফলে ইতিমধ্যেই ওই শহরের হোটেলগুলিতে তাদের অতিথিদের জন্য ‘ওয়াটার রেশনিং’ করতে বলেছে ৷

পাশাপাশি দেখা গিয়েছে, এই শহরের বেশ কিছু সংস্থা কর্মীদের ‘ক্যান্টিন’ এবং ‘রেস্টরুম’-এ জলের খরচ কমাতে বলেছে ৷ এই সব সংস্থাগুলির মধ্যে রয়েছে -টিসিএস, কগনিজেন্ট, উইপ্রো, ফিয়াট ক্রিসলার ৷

পড়ুন: মেঘভাঙা বৃষ্টি: সিকিমে আটকে পড়া ৪২৭ পর্যটককে উদ্ধার

এই বছরে বর্ষা আসতে দেরি করেছে৷ যার ফলে যে চারটি জলের রিজার্ভার মূলত চেন্নাইয়ে জল সরবরাহ করে থাকে সেগুলি শুকিয়ে গিয়েছে৷ গত বছর বৃষ্টি না হওয়ায় পরিস্থিতি এমন জটিল আকার ধারণ করেছে৷ উত্তর পূর্ব মৌসুমী বায়ুর উপর পুরোপুরি নির্ভরশীল চেন্নাই, যা শুরু হয় অক্টোবর মাসে৷ ২০১৮ সালের শেষ তিন মাসে গড়ের চেয়েও কম বৃষ্টি হয়েছে ৷ যারফলে গত ডিসেম্বরেই ৮০ শতাংশের মতো ঘাটতি হয়ে গিয়েছিল৷

এদিকে স্টেট অথোরিটি জানিয়েছে প্রতি বছরই কিছু পদক্ষেপ করা হয় জল সরবরাহের জন্য ৷ পুরসভার পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে, ২০১৭ সালে যেখানে ৪৫০ মিলিয়ন লিটার সরবরাহ করা হত সেখানে এবার ৫২৫ মিলিয়ন লিটার প্রতিদিন দল সরবরাহ করা হচ্ছে ৷ যদিও সেখানে তাপমাত্রা ৪০ ডিগ্রি ছাড়িয়ে যাওয়ায় জল নিতে জলের ট্যাঙ্কের কাছে ভিড় জমতে দেখা যাচ্ছে ৷