নিউজ ডেস্ক, কলকাতা: নির্মাণ ও খনির সরঞ্জাম উৎপাদনকারী সংস্থা টাটা হিতাচির মূল কর্মকাণ্ড ঝাড়খণ্ড থেকে খড়গপুরের কারখানায় সরে আসছে। টাটা গোষ্ঠীর এমন উদ্যোগ অবশ্যই বাংলার শিল্প পরিবেশের পক্ষে ইতিবাচক বার্তা দিচ্ছে৷ বিশেষত যেখানে সিঙ্গুর থেকে টাটা গোষ্ঠীর ন্যানো গাড়ি প্রকল্প গুজরাটের সানন্দে সরে যাওয়ায় এমন উদ্যোগ এই শিল্প গোষ্ঠীর বাংলার প্রতি ভরসা রাখার বার্তা বলেই মনে করা হচ্ছে।

সংস্থার পক্ষ থেকে জানা গিয়েছে, ১৯৬১ সাল থেকে জামশেদপুরে এই সংস্থার যে পুরনো উৎপাদন ইউনিটটি ছিল তা বন্ধ করে দেওয়া হবে এবং বদলে তা সরিয়ে নিয়ে আসা হবে বাংলাক খড়গপুরে। জামশেদপুর কেন্দ্রে ৬৫–১২০ টনের খননকারী যন্ত্র তৈরি হতো। এবার ৩০০ জন কর্মীদের নিয়ে টাটা হিতাচি খড়গপুরে স্থানান্তরিত হতে চলেছে।

পড়ুন: গুজরাত দাঙ্গায় গণধর্ষিতা বিলকিস বানোকে ৫০ লক্ষ দেওয়ার নির্দেশ

প্রসঙ্গত, ২০০৬ সালে খড়গপুরের টাটা হিতাচি প্রতিষ্ঠানের জন্য ৫৫০ কোটি টাকা বিনিয়োগ করা হয়েছিল। আবার ওই একই সময়ে সিঙ্গুরে ন্যানো গাড়ি উৎপাদনের কারখানার গড়তে বিনিয়োগ করেছিল টাটা গোষ্ঠী। ন্যানো কারখানার জমি নিয়ে বাধা জেরে সরে যায় অন্যত্র৷ সেদিক থেকে টাটা হিতাচিকে তেমন বড় কোনও সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়নি৷ ২০১৫ সালে কিছু চুক্তিভিত্তিক কর্মীদের বিক্ষোভ–প্রতিবাদ হলেও তৎকালীন রাজ্য সরকারের উচ্চস্তরের পদক্ষেপে সেই জট কেটে যায়।

তাছাড়া কয়েকদিন আগেই অবশ্য টাটা গোষ্ঠী বাংলার প্রতি ইতিবাচক বার্তা দিয়েছেন কারণ গত বৃহস্পতিবার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল ওডিশা থেকে টাটা স্পঞ্জ আয়রন তাদের রেজিস্টার্ড অফিস পশ্চিমবঙ্গে সরিয়ে আনার।