নয়াদিল্লি: শবরীমালা মন্দিরে মেয়েদের প্রবেশাধিকার এবং তা নিয়ে চলা বিতর্কের বিষয়ে মুখ খুললেন লেখিকা তসলিমা নাসরিন। দক্ষিণ ভারতের ওই মন্দিরে প্রবেশ করতে চাওয়া মহিলাদের উদ্দেশ্যে তাঁর প্রশ্ন, “মন্দিরে প্রবেশের বিষয়ে এত আগ্রহ কিসের?”

দক্ষিণ ভারতের রাজ্য কেরলের শবরীমালা মন্দির নিয়ে বিতর্ক দীর্ঘদিনের। প্রচলিত রীতি ছিল যে ওই মন্দিরে মহিলারা প্রবেশ করতে পারবেন না। ৫০ বছরের বেশি মহিলাদের ক্ষেত্রে সেই নিয়মে কিছুটা ছাড় ছিল।

এই নিয়মের বিরুদ্ধে শুরু হয় আন্দোলন। সকল মহিলাদের সবরিমালা মন্দিরে প্রবেশের দাবিতে সেই আন্দোলনের জল গড়ায় সুপ্রিম কোর্টে। দেশের সর্বোচ্চ আদালত সকল মহিলাদের শবরীমালা মন্দিরে প্রবেশের ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা তুলে দিয়েছিল। যদিও ভক্তরা আদালতের দাবি মানতে নারাজ। মহিলাদের মন্দিরে প্রবেশ করতে চাইলে তারা বাধা দেয়। এই নিয়ে তৈরি হয় প্রশাসনিক জটিলতা। গত বৃহস্পতিবার রাজ্য প্রশাসনের কর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করে স্থির করেন যে সপ্তাহে একটি দিন কেবলমাত্র মহিলা ভক্তদের জন্য খোলা রাখা হবে সবরিমালা মন্দির।

এই বিষয়ে শনিবার নিজের অভিমত প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশের নির্বাসিত লেখিকা তসলিমা নাসরিন। সোশ্যাল মিডিয়া ট্যুইটারে তিনি লিখেছেন, “আমি বুঝতে পারছি না মহিলা আন্দোলনকারীরা কেন শবরীমালা মন্দিরে প্রবেশ করতে এত আগ্রহী।” একই সঙ্গে তিনি আরও লিখেছেন, “মহিলা আন্দোলনকারীরা যদি প্রত্যন্ত গ্রামগুলোতে গিয়ে মহিলাদের সমস্যা সমাধানের কথা ভাবেন তাহলে সেটা খুব ভাল হয়।”

গ্রামের দিকে মহিলাদের খুব নির্যাতনের শিকার হতে হয় বলে দাবি করেছেন লজ্জার লেখিকা তসলিমা। তিনি জানিয়েছেন যে গ্রামের মহিলারা পারিবারিক হিংসা, ধর্ষণ, যৌন নির্যাতন, ঘৃণার মতো নানাবিধ সমস্যায় জর্জরিত। সেই সকল মহিলাদের পাশে দাঁড়ানোর কথা বলেছেন তসলিমা। মহিলাদের শিক্ষা, স্বাস্থ্য, কাজ এবং কাজের জন্য সমান মজুরির দাবিতে আন্দোলনকারীদের পথে নামার কথা বলেছেন তিনি।