লন্ডন ও ঢাকা: বাংলাদেশ থেকে বিদেশে অর্থ পাচারে যারা জড়িত তাদের কোনও ক্ষমা করা হবে না৷ ব্রিটেনের রাজধানী লন্ডন থেকে এমনই বার্তা দিলেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা৷ তাৎপর্যপূর্ণ ঘটনা, অর্থ পাচার মামলায় বিএনপি সুপ্রিমো তথা খালেদা জিয়ার পুত্র তারেক রহমান বর্তমানে লন্ডনেই রয়েছেন৷ তাঁর বিরুদ্ধে একাধিক মামলা রয়েছে৷ তারেক পলাতক ঘোষিত হয়েছেন৷

বৃহস্পতিবার লন্ডনের তাজ হোটেলে অনুষ্ঠিত এক মতবিনিময় সভায় বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা বঙ্গবন্ধুর খুনি ও যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করেছি। খুনি ও অর্থ পাচারকারীরা যেখানেই লুকিয়ে থাকুক, যত টাকাই খরচ করুক, তাদের কোনও ক্ষমা নেই এবং জাতি তাদের ক্ষমা করবে না।’ লন্ডনে থাকা বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের প্রতি ইঙ্গিত করে তিনি বলেন, ‘আদালত খুনি ও অর্থ পাচারকারীদের বিরুদ্ধে রায় দিয়েছে। আমরা এই রায় কার্যকরের পদক্ষেপ নেব। তারা যত স্লোগানই দিক, যত তিরস্কারই করুক, তাদের অবশ্যই শাস্তি হবে।’

এদিকে লন্ডন থেকে শেখ হাসিনার এমন বার্তা দেওয়ার পর বাংলাদেশের রাজনীতিতে চাঞ্চল্য ছড়ায়৷ অন্যতম বিরোধী দল বিএনপির শীর্ষ নেতৃত্ব এই বিষয়ে কিছু বলতে চাইছেন না৷ তবে বিএনপির অন্দর মহলে সম্প্রতি ব্যাপক ভাঙন তৈরি হয়েছে৷ সেই ক্ষত সারাতে দলেরই দুই অন্যতম শীর্ষ নেতা মির্জা ফকরুল ইসলাম আলমগীর ও গয়েশ্বর চন্দ্র রায়কে নির্দেশ দিয়েছেন তারেক রহমান৷ দলের শীর্ষ নেত্রী তথা প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া অর্থ তছরুপ মামলায় জেলবন্দি৷

লন্ডনে শেখ হাসিনা আওয়ামী লীগের ব্রিটেন শাখা ও দলের সহযোগী সংগঠন এই মতবিনিময় সভায় অংশ নেন৷ অনুষ্ঠানে ছিলেন বাংলাদেশের বিদেশ প্রতিমন্ত্রী মহম্মদ শাহরিয়ার আলম ও ব্রিটেনে আওয়ামী লীগ সভাপতি সুলতান মাহমুদ শরিফ৷ এই অনুষ্ঠানে বিএনপি প্রতি ইঙ্গিত করে শেখ হাসিনা বলেন, ‘তারা আমাদের সরকারের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ উত্থাপন করে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করতে চায়। আসলে যাদের জন্মই মিথ্যা দিয়ে, তারা তো এমনটিই করবে।’ তিনি ঐক্যবদ্ধ থেকে সকল ষড়যন্ত্র মোকাবেলার জন্য নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানান।