কলকাতা:  কলকাতায় পৌঁছল তাপস পালের নশ্বর দেহ। অভিনেতাকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে কলকাতা বিমানবন্দরেই মানুষের ঢল। তবে বিমানবন্দর থেকে সরাসরি মরদেহ অ্যাম্বুলেন্সে করে তাপস পালের গলফ ক্লাবের বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হয়। জানা যাচ্ছে, পরিবারের ইচ্ছাতেই কফিন বন্দি দেহ গলফ ক্লাবের বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। আজ মঙ্গলবার সারারাত বাড়িতে থাকবে মরদেহ।

সেখান থেকে আগামিকাল বুধবার সকাল ১১টা নাগাদ মরদেহ বার করে নিয়ে আসা হবে রবিন্দ্রসদনে। সেখানেই সাধারণ মানুষ তাঁদের প্রিয় সাহেবকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে পারবেন। জানা যাচ্ছে, সেখানেই তাপস পালকে শেষ শ্রদ্ধা জানাবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এছাড়াও, সেখানেই প্রয়াত অভিনেতাকে শ্রদ্ধা জানাবেন চলচ্চিত্র জগতের ব্যক্তিত্বরা। তবে টলিগঞ্জে নিয়ে যাওয়া হবে না তাঁর মরদেহ। জানা যাচ্ছে, বেলা ১টা নাগাদ রবীন্দ্রসদন থেকে কালিঘাটের কেওড়াতলা মহাশ্মশানে হবে তাপস পালের শেষকৃত্য। জানা যাচ্ছে, পূর্ণ রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় হবে তাপস পালের শেষ কৃত্য।

প্রসঙ্গত, আজ মঙ্গলবার ভোর ৩টে ১৫ মিনিট নাগাদ মুম্বইয়ের একটি বেসরকারি হাসপাতালে প্রয়াত হন বাঙালির ঘরের ছেলে তাপস। ১ ফেব্রুয়ারি মেয়ের কাছে যাওয়ার জন্য বিমানবন্দর পৌঁছে ছিলেন তিনি। তখনই আচমকা অসুস্থ হয়ে পড়েন। সঙ্গে সঙ্গে তাঁকে মুম্বইয়ের একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। প্রায় দু’সপ্তাহ ধরে হাসপাতালেই ছিলেন তাপস পাল। তাঁর চিকিৎসায় মেডিক্যাল বোর্ডও গঠন করা হয়। কিন্তু তাঁর শারীরিক অবস্থার খুব একটা উন্নতি হয়নি। আজ মঙ্গলবার ভোররাতে দ্বিতীয়বার কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট হয় তাঁর। সেই ধকল আর নিতে পারেননি তিনি। হাসপাতালেই মৃত্যু হয় তাপস পালের। তাঁর মৃত্যুসংবাদে শোকস্তব্ধ টলিউড। শোকস্তব্ধ তাঁর অসংখ্য অনুরাগী। কেউ মেনে নিতেই পারছেন না যে তাপস আর নেই।

তাপস পালের মৃত্যুতে সেই সময়ের সন্ধ্যা রায়, মাধবী মুখোপাধ্যায়, সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়, প্রসেনজিৎ-ঋতুপর্ণা থেকে শোকপ্রকার করেছেন। শোকস্তব্ধ দেব, মিমি, নুসরত, সোহম, পায়েলের মতো অভিনেতা-অভিনেত্রীরাও। শোকস্তব্ধ মাধুরীও। তাঁর কেরিয়ারের প্রথম অভিনেতা তাপস পাল। ফলে তাঁর মৃত্যুতে শোকস্তব্ধ তিনিও।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও