কলকাতা:  মঙ্গলবার ভোররাতে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন বাংলার জনপ্রিয় অভিনেতা তাপস পাল। মুম্বইয়ের হাসপাতালে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয় তাঁর। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৬১ বছর। অভিনেতার মৃত্যুতে বাংলা চলচ্চিত্র জগতে নেমে এসেছে শোকের ছায়া। মঙ্গলবার রাতেই মুম্বই থেকে কলকাতায় তাঁর দেহ নিয়ে আসেন পরিজনেরা।

মঙ্গলবার রাতে দক্ষিণ কলকাতায় তাঁর বাসভবনে সংরক্ষিত থাকে অভিনেতার শবদেহ। বুধবার শেষকৃত্যের আগে সকাল ১১’টা থেকে ১’টা পর্যন্ত তাঁর মরদেহ রবীন্দ্র সদনে শায়িত থাকে। সেখানে বিশিষ্ট এই অভিনেতাকে শ্রদ্ধার্ঘ জানান মুখ্যমন্ত্রী, সাধারণ মানুষ, টলিপাড়ার কলাকুশলীরা।

এবং এদিন সকালে দলের পক্ষ থেকে শোকবার্তায় বাংলা ছবির এই সুপার স্টারকে ‘তৃণমূল পরিবারের সদস্য’ বলে উল্লেখ করেছেন তৃণমূল সুপ্রিমো। মুখ্যমন্ত্রী থেকে রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়, বিরোধী দলের প্রতিনিধিরা তাঁর মৃত্যুতে শোক জ্ঞাপন করেছেন। বেলা ১’টার পর তাঁর মরদেহ গান স্যালুটের মধ্যদিয়ে নিয়ে যাওয়া হয় কেওড়াতলা মহাশ্মশানে।

 

সাহেবের মৃত্যুতে শোক জ্ঞাপন করে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন বিশিষ্ট রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বরা। তাঁর মৃত্যুতে শোকবার্তা জানিয়েছেন, মাধুরী দীক্ষিত। তাপসের বিপরীতেই ‘অবোধ’ ছবির মাধ্যমেই ফিল্মি কেরিয়ার শুরু হয় এই বলিউড গ্ল্যামার কুইনের। তাই নিজের কেরিয়ারের প্রথম ছবির নায়কের মৃত্যুতে তিনি লিখেছেন, ‘তাপস পাল প্রয়াত হলেন। আমার অভিনয় জীবনের প্রথম যুগের বিভিন্ন অভিনেতাদের মধ্যে তিনি অন্যতম। প্রার্থনা করি, এই কঠিন সময়ে ঈশ্বর তাঁর পরিবারের সহায় হবেন।’

পাশাপাশি শোক জ্ঞাপন করেছেন তাঁর অন্যতম কলাকুশলী, রিনা চৌধুরী, পাপিয়া চৌধুরী, ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত প্রমুখ। রবীন্দ্র সদনে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে এসে কান্নায় ভেঙে পড়েন অভিনেত্রী রচনা বন্দ্যোপাধ্যায়, ঋতুপর্ণা।

কলকাতার 'গলি বয়'-এর বিশ্ব জয়ের গল্প