বেজিং : যত কাণ্ড সব যেন হচ্ছে চিনে। এবছর বিপদ যেন কিছুতেই পিছু ছাড়ছে না চিনাবাসীর জীবন থেকে। করোনার ঠেলায় একে রামে রক্ষা নেই তার উপর দোসর হিসেবে জাঁকিয়ে বসছে একের পর এক বিপদ।

আর এই করোনা আবহে এবার এক চিনা নাগরিকর বাড়ির ট্যাপ কলের মুখ থেকে জলের পরিবর্তে বের হচ্ছে আগুন। যা দেখে তাজ্জব বনে গিয়েছেন ওই ব্যক্তি। আর এমন ঘটনার ভিডিও ভাইরাল হতেই চিন নিয়ে ফের জোর চর্চা শুরু হয়েছে নেটিজেন মহলে।

চিনা দৈনিক ‘পিপলস ডেইলি’ সূত্রে খবর, ঘটনাটি ঘটেছে চিনের পাঞ্জিনের একটি গ্রামে। আর এই ঘটনা প্রথম নয়। গত চার বছর ওয়েন নামক ওই মহিলার বাড়িতে এমন ঘটনা ঘটে আসছে। তবে জলের বদলে আগুনের ফুলকী বের হলেও এর পিছনে রয়েছে অন্য একটি কারণ। জানা গিয়েছে, মাটির নীচে জলের পাইপ লাইনে প্রাকৃতিক গ্যাস অনুপ্রবেশের ফলে অস্থায়ী ভূগর্ভস্থ জল সরবরাহ ব্যবস্থার কারণে এই ঘটনা ঘটেছে। যদিও এখন জল সরবরাহ বন্ধ রাখা হয়েছে।

এদিকে বিষয়টি স্থানীয় প্রশাসনের নজরে আসায় ঘটনার পূর্ণাঙ্গ তদন্তের দাবি জানানো হয়েছ। তবে এই ঘটনায় কোনও ক্ষয়ক্ষতির খবর পাওয়া যায়নি।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।