স্টাফ রিপোর্টার, তমলুক: প্রচার আছে৷ জোড়াফুলের বিরুদ্ধে স্লোগান রয়েছে৷ তার সঙ্গেই পদ্ম শিবিরের প্রচারে সংযোজন কীর্তন৷

সোমবার পূর্ব মেদিনীপুরের তমলুক কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থীর প্রচারে দেখা মিলল অভিনবত্বের৷ প্রচারে বেরিয়ে কীর্তনে জয়ধ্বনি দিয়ে তাল মেলালেন প্রার্থী সিদ্ধার্থ নস্কর৷ কীর্তনের মধ্যে দিয়ে ছড়িয়ে পড়ে মিলনের বার্তা৷ তাই রাস্তার দুপাশর দাঁড়িয়ে থাকা মানুষদের আলিঙ্গন করতেও দেখা গেল তাঁকে৷ চৈত্রের গরম ও কাজের ফাঁকে কীর্তনের তালে তাল দিলেন স্থানীয়রা৷ ভোটের প্রচার না কীর্তনের আসর- দেখে বোঝা দায়৷

শুধু কীর্তনই নয়৷ প্রচার শেষে দলের কর্মী, সমর্থকদের জন্য ছিল ভোজের আয়জন৷ অন্নভোগ পরিবেশন করেন তমলুকের বিজেপি প্রার্থী সিদ্ধার্থ নস্কর নিজে৷ তিনি বলেন, ‘‘কীর্তনীয়ারাই নয়৷ প্রচারে আমার সঙ্গে বেড়িয়ে পড়েছেন সুফি সাধকরাও৷ জীবনে যারা কোনদিন রামনাম করেনি তারাও কীর্তন গাইছেন৷ তৃণমূলও কীর্তনীয়াদের ডেকে ভেট দিচ্ছে৷ এটাই আনন্দের যে ওদের শুভবুদ্ধির উদয় হয়েছে।’’

লক্ষ্মন শেঠ ভোট লড়লেও ‘হাতে’র জোড় তেমন নেই৷ অনেকেই বলছেন পদ্ম পাপড়ি মেললেও অধিকারী গড়ে জয় তাদের স্বপ্নই৷ এবিষয়ে বিজেপি প্রার্থী বলেন, ‘‘লড়াই তৃণমূলের বিরুদ্ধে৷ একই সঙ্গে অধিকারী সাম্রাজ্য পতনেরও৷’’ তাঁর আশা এবার পরিবারতন্ত্র গঙ্গায় বিসর্জিত হবে৷

আরও পড়ুন: প্রচারে গোমাতা পুজো করলেন বিজেপি’র ডাক্তারবাবু

ভোট ঘিরে মেদিনীপুরের পরিবেশ অবশ্য বেশ তপ্ত৷ তৃণমূল কর্মীকে মারধর ও পুলিশের তল্লাশিতে দুই বিজেপি কর্মীকে অস্ত্র-সহ গ্রেফতারের ঘটনায় শনিবার থেকেই উত্তপ্ত হয়ে উঠেছিল পূর্ব মেদিনীপুরের ময়না। বাকচার তিওয়ারি মোড়ের কাছে গাছের গুঁড়ি ফেলে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভও দেখিয়েছিলেন বিজেপি কর্মী সমর্থকেরা।পরে পুলিশের হস্তক্ষেপে অবরোধ উঠলেও চাপা উত্তেজনা রয়েছে এলাকায়।