ঢাকা্: বিশ্বক্রিকেটে ‘ফিটনেস বিপ্লব’ এনেছেন বিরাট কোহলি৷ সেই বিরাটকেই লকডাউনে এত ফিটনে ট্রেনিং করতে দেখে অবাক হয়েছেন বাংলাদেশের নতুন ওয়ান ডে অধিনায়ত তামিম ইকবাল৷

ভারতীয় ক্রিকেটের ‘ফিটনেস বিপ্লব’ বাংলাদেশ ক্রিকেটেও যে প্রভাব ফেলেছে, তা স্বীকার করছেন তামিম৷ টাইগারদের ফিটনেসের প্রতি দৃষ্টিভঙ্গির পরিবর্তন বিরাট কোহলি এবং ভারতীয় দলের অন্য ক্রিকেটারদের দ্বারা প্রভাবিত হয়েছে বলে পরিষ্কার জানান টাইগারদের ওয়ান ডে ক্যাপ্টেন৷

প্রাক্তন ভারতীয় ব্যাটসম্যান তথা ধারাভাষ্যকর সঞ্জয় মঞ্জরেকরের সঙ্গে সোশ্যাল মিডিয়ায় কথা বলার সময়ে বাংলাদেশের বাঁ-হাতি ওপেনার বলেন, ‘ভারত আমাদের প্রতিবেশী দেশ। ভারতীয় ক্রিকেটে কী ঘটছে সে দিকে আমরা নজর রাখি। ভারতীয় ক্রিকেট যখন ফিটনেসের উপরে জোর দিল, তখন তার প্রভাব পড়ল বাংলাদেশের ক্রিকেটেও।’

বাংলাদেশের ক্রিকেটাররাও ফিটনেস বাড়ানোর দিকে নজর দেন। বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা আগের থেকে এখন অনেক ফিট। ফিটনেসের প্রতি দৃষ্টিভঙ্গিতে ভারতীয় ক্রিকেটের পরিবর্তন বাংলাদেশ ক্রিকেটকে সবচেয়ে বেশি প্রভাবিত করেছে বলেও জানান তামিম৷

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে শুরু থেকেই বিরাট কোহলির ফিটনেস সম্ভ্রম জাগানোর মতোই। যত সময় যাচ্ছে ফিটনেসে বিরাট নিজেকে আগের থেকেও বেশি ফিট করে তুলছেন। এর জন্য প্রচণ্ড পরিশ্রম করছেন। ভারত অধিনায়ককে জিমে ঘাম ঝরাতে দেখে রীতিমতো লজ্জা পেয়ে গিয়েছিলেন তামিম। সে কথা গোপনও করেননি টাইগারদের ওয়ান ডে ক্যাপ্টেন৷

৩১ বছর বয়সি তামিম বলেন, ‘আপনাকে আমার এটা বলতে কোন লজ্জা নেই। আমি মনে করি, এটা করা উচিত। ৩-৪ বছর আগে বিরাট কোহলিকে ফিটনেস নিয়ে খাটতে দেখে আমি লজ্জা পেয়েছিলাম। বিরাটকে দেখে মনে মনে বলেছিলাম, বয়সের দিক থেকে আমরা দু’জনে প্রায় সমসাময়িক। অথচ সাফল্য পাওয়ার জন্য ও কীরকম খাটছে। ও যা পরিশ্রম করে আমি তার অর্ধেকও পরিশ্রম করি না। আমি বিরাটের সমান হতে না পারি, ওর পথ অনুসরণ করতে ক্ষতি কী৷’

প্রশ্ন অনেক: দ্বিতীয় পর্ব