লন্ডন: চোট-আঘাত সমস্যা পিছু ছাড়তে চাইছে না বাংলাদেশ শিবিরকে। রবিবার দ্য ওভালে বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার মুখোমুখি বেঙ্গল টাইগাররা। তার আগে নেট সেশনে চোট পেলেন দলের তারকা ওপেনার তামিম ইকবাল।

শুক্রবার নেটে ব্যাটিং করার সময় বাঁ-হাতের কব্জিতে চোট লাগে তাঁর। সঙ্গে সঙ্গে ফিজিও থিয়ান চন্দ্রমোহনের সাথে মাঠ ছেড়ে ড্রেসিংরুমে ফিরে আসেন বাংলাদেশ ওপেনার। প্রাথমিকভাবে দলের তরফে চোট নিয়ে কিছু জানানো সম্ভব হয়নি। পরবর্তীতে চোট ঠিক কতটা গুরুতর তা জানতে তামিমের কব্জিতে এক্স-রে করা হয়। এক্স-রে রিপোর্ট অনুযায়ী তামিমের আঘাত খুব একটা গুরুতর নয়। তাতে চিড় ধরারও কোনও উল্লেখ নেই। তবুও প্রথম ম্যাচে তাঁকে পাওয়া যাবে কিনা, নিশ্চিতভাবে বলা যাচ্ছে না বাংলাদেশ শিবিরের পক্ষ থেকে।

আরও পড়ুন: চাপ কাটাতে পেইন্টবলে মজলেন কোহলি-ধোনিরা

স্বভাবতই বিশ্বকাপ অভিযান শুরুর আগেই দলের তারকা ওপেনারের চোট উদ্বেগ বাড়িয়েছে বাংলাদেশ শিবিরে। তামিমের চোট সম্পর্কে নির্বাচক হাবিবুল বাশার প্রাথমিকভাবে জানান, ‘এখনই তামিমের চোট নিয়ে কিছু বলা সম্ভব নয়। ওর কব্জিতে এক্স-রে করা হবে তারপরেই সবটা জানা যাবে। তবে চিড় ধরলে তাঁকে পাওয়া সম্ভব নয়। আশা রাখব সেসব কিছুই যাতে না হয়। ও যেন প্রথম ম্যাচেই মাঠে নামতে পারে।’

আরও পড়ুন: আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে ওয়ার্নারকে পেতে সমস্যা নেই অস্ট্রেলিয়ার

ওপেনার হিসেবে বাংলাদেশ দলে তামিমের গ্রহণযোগ্যতা প্রশ্নাতীত। তাই প্রথম ম্যাচে এই বাঁ-হাতি ওপেনারকে না পাওয়া বড় ধাক্কা হতে পারে এশীয় শক্তিটির জন্য। ২০০৭ বিশ্বকাপে বাংলাদেশের হয়ে উল্লেখযোগ্য অবদান রাখেন তামিম। উল্লেখ্য, ওই বছরেই ওয়ান-ডে ক্রিকেটে অভিষেক হয়েছিল এই ওপেনারের। জোড়া অর্ধশতরান করে বিশ্বকাপের আগে আয়ারল্যান্ডের মাটিতে বাংলাদেশের ত্রিদেশীয় সিরিজ জয়ে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছেন তামিম।

তামিমের পাশাপাশি পিঠের সমস্যা কাটিয়ে আপাতত সুস্থ হওয়া তরুণ পেসার মহম্মদ সইফুদ্দিনের ফিটনেস নিয়েও চিন্তিত বাংলাদেশ শিবির। এছাড়া অধিনায়ক মাশরাফি মোর্তাজার হ্যামস্ট্রিং ইনজুরি কিংবা অল-রাউন্ডার শাকিব আল হাসানের পিঠের সমস্যা একটা বড় উদ্বেগের বিষয় বাংলাদেশ শিবিরের জন্য।