কর্ণাটককে ফাইনালে তুলে উচ্ছ্বসিত ময়াঙ্ক

বেঙ্গালুরু: বিজয় হাজারে ট্রফির ফাইনালে তামিলনাড়ু মুখোমুখি হতে চলেছে কর্ণাটকের। সেমিফাইনালে দীনেশ কার্তিকের তামিলনাড়ু পার্থিব প্যাটেল এর গুজরাতকে ৫ উইকেটে পরাজিত করে। অপর সেমিফাইনালে মণীশ পান্ডের নেতৃত্বাধীন কর্ণাটক ৯ উইকেটে বিধ্বস্ত করে ছত্তিশগড়কে।

জাস্ট ক্রিকেট অ্যাকাডেমির মাঠে টস জিতে গুজরাতকে প্রথমে ব্যাট করার আমন্ত্রণ জানায় তামিলনাড়ু। বৃষ্টির জন্য ৪০ ওভারে কমে দাঁড়ানো ম্যাচে গুজরাত প্রথমে ব্যাট করে ৯ উইকেট এর বিনিময় ১৭৭ রান তোলে। ধ্রুব রাভাল ৪০, অক্ষর প্যাটেল ৩৭, চিন্তন গাজা ২৪ ও ভার্গব মেরিয়া ২০ রান করেন। পার্থিব প্যাটেল ১৩, প্রিয়ঙ্ক পাঞ্চাল ৩ ও পীযূষ চাওলা ১৪ রান করে আউট হন। এম মহম্মদ ২৩ রানে ৩ উইকেট নেন। ৮ ওভারে মাত্র ২১ রানের বিনিময়ে ১টি উইকেট নিয়েছেন রবিচন্দ্রন অশ্বিন। এছাড়া ১টি করে উইকেট পেয়েছেন টি নটরাজন, ওয়াশিংটন সুন্দর, মুরুগান অশ্বিন ও বাবা অপরাজিত।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে তামিলনাড়ু ৩৯ ওভারে ১ উইকেটে বিনিময় ১৮১ রান তুলে ম্যাচ জিতে যায়। শাহরুখ খান ৪৬ বলে ৫৬ রান করে অপরাজিত থাকেন। দীনেশ কার্তিক করেন ৪৭ বলে ৪৭ রান। অভিনব মুকুন্দ ৩২ ও ওয়াশিংটন সুন্দর ২৭ রানের যোগদান রাখেন। মুরলি বিজয় ৩, বাবা অপরাজিত ৬ ও বিজয় শংকর ৬ রান করে আউট হন। অক্ষর প্যাটেল ও পীযূষ চাওলা ১টি করে উইকেট নিয়েছেন।

অন্যদিকে, এম চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামে টস জিতে ছত্তিশগড়কে প্রথমে ব্যাট করতে ডাকে কর্ণাটক। ৪৯.৪ ওভারে ২২৩ রানে অলআউট হয়ে যায় ছত্তিশগড়। আমনদীপ খাড়ে ৭৮ রান করে আউট হন। ৪০ রান করেন রুইকার। ভি কৌশিক ৪টি উইকেট নেন। ২টি করে উইকেট পেয়েছেন অভিমন্যু মিঠুন, কৃষ্ণাপ্পা গৌতম ও প্রবীণ দুবে।

পালটা ব্যাট করতে নেমে কর্ণাটক ৪০ ওভারে মাত্র ১ উইকেটের বিনিময়ে ২২৯ রান তুলে ফাইনালের টিকিট নিশ্চিত করে। দেবদূত পাডিক্কাল ৯২ রান করে আউট হন। ৮৮ রান করে অপরাজিত থাকেন লোকেশ রাহুল। ৪৭ রানে নট-আউট থাকেন ময়াঙ্ক আগরওয়াল।