ওয়াশিংটন: সম্প্রতি পরমাণু হামলার হুমকি দিয়েছেন উত্তর কোরিয়ার বিদেশমন্ত্রী রি ইয়ং হো। আর সেই হুঁশিয়ারি যে যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ সেকথাই মনে করিয়ে দিলেন উত্তর কোরিয়ার এক উচ্চপদস্থ আধিকারিক। বুধবার এক সাক্ষাৎকারে তিনি জানিয়েছেন, বিদেশমন্ত্রীর এই বার্তা সত্যি বলেই ধরে নেওয়া উচিৎ।

রি ইয়ং পিল নামে ওই কূটনীতিক জানিয়েছেন, উত্তর কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট কিম জং উন সম্পর্কে যথেষ্ট ওয়াকিবহাল সেদেশের বিদেশমন্ত্রী। তাই তাঁর দেওয়া বার্তা সঠিক বলেই ধরে নেওয়া উচিৎ। কিছুদিন আগেই উত্তর কোরিয়ার বিদেশমন্ত্রী হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, আমেরিকাকে আঘাত করতে পারে এমন পরমাণু অস্ত্র তৈরি করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন: মার্কিন গোয়েন্দা বিমানের কান ঘেঁষে উড়ল রাশিয়ান জেট

অন্যদিকে, মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা সিআইএ-র প্রধান সতর্কবার্তা দিয়ে বলেছেন, আমেরিকাকে আঘাত করতে পারে এমন মিসাইল তৈরির চূড়ান্ত পর্যায়ে পৌঁছে গিয়েছে উত্তর কোরিয়া। আর একথা মাথায় রেখেই প্রস্তুতি নিতে হবে আমেরিকাকে। সিআইএ-র ডিরেক্টর মাইক পোমপি বলেন, প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প চেষ্টা করছেন যাতে উত্তর কোরিয়াকে মিসাইল উৎক্ষেপণ থেকে থামানো যায়। সিআইএ প্রধান ও মার্কিন ন্যাশনাল সিকিউরিটি অ্যাডভাইজার দু’জনেরই দাবি ডোনাল্ড ট্রাম্প কিমকে জোর করে আলোচনায় বসিয়ে নিরস্ত্র করতে চাপ দিক। তবে লং রেঞ্জের নিউক্লিয়ার মিসাইল উৎক্ষেপণ আটকাতে মার্কিন সেনাকে তৈরি থাকতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন দুই গোয়েন্দা অফিসার।

সিআইএ ডিরেক্টর আরও বলেন, আগেও উত্তর কোরিয়ার উপর কড়া নজর রেখেছে ওয়াশিংটন। তবে এবার মিসাইল প্রস্তুত করার কাজ অত্যন্ত দ্রুতগতিতে করছে পিয়ংইয়ং। তবে সিআইএ-র ইতিহাস বলছে এই সংস্থা গোপনে ছক কষে একের পর এক রাষ্ট্রনেতাদের হত্যা করেছে। এবার কি তবে কিম জং উন? উত্তর দিতে রাজি হলেন না ডিরেক্টর মাইক পোমপি।

আরও পড়ুন: ‘এই ধরণের ছবি তোলার জন্যে আমাকে যৌনতায় রাজি হতে হল’