কলকাতা: স্টুডিও পাড়ার গলিতে রয়েছে জানা-অজানা হরেক কাহিনি। তারমধ্যে থেকে একটি তুলে নিয়েছেন পরিচালক সৌমিক সেন। ছবির নাম ‘মহালয়া’৷ যে গল্পের নায়ক উত্তম কুমার। প্লট মহালয়া। মহানায়কের নাম-ভূমিকায় যীশু সেনগুপ্ত।

সম্প্রতি মুক্তি পেল ছবির একটি দৃশ্যের স্টিল৷ বিহাইন্ড দ্য সিনসের এই ছবিটিতে দেখা যাচ্ছে যীশুকে মাইকের সামনে দাঁড়িয়ে৷ উত্তম কুমারের ভূমিকায় তাঁকে বেশ মানিয়েছে বলেই দাবি করছে ভক্তকূল৷ উত্তর প্রেমে এক সময় ঘরে ঘরে ভালোবাসার জোয়ার। সেই জোয়ারে জনপ্রিয়তার পাল দ্বিগুন করতে চেয়েছিল আকাশবাণী।

সালটা ১৯৭৬। বীরেন্দ্রকৃষ্ণ ভদ্রের পরিবর্তে রেডিওতে মহালয়া পাঠ করবেন উত্তম কুমার। লিখবেন বাণীকুমার। হেমন্ত সুর দেবেন। কথা মতো বেশ কয়েকদিন মহড়া হল। বাড়িতে মাস্টারমশাই রেখে সংস্কৃত উচ্চারণ শুদ্ধ করলেন উত্তমকুমার। মহালয়ার দিন রেকর্ডিংও হল।

কিন্তু, জনপ্রিয়তা পেল না উত্তমের মহালয়া পাঠ। অনেকে বলেছিলেন, মহালয়া পাঠ করা একেবারেই উচিত হয়নি উত্তমকুমারের। আবার কেউ কেউ বললেন, ভালোই হয়েছে তবে বীরেন্দ্রকৃষ্ণবাবুর মতো হয়নি। প্রত্যাশা পূরণ করতে পারেননি মহানায়ক।

যীশু সেনগুপ্ত ছাড়াও এই ছবিতে দেখা যাবে, প্রসেনিজৎ চট্টোপাধ্যায়, শুভাশিস মুখার্জি, রূদ্রনীল ঘোষকে দেখা যাবে। জানা গিয়েছে, বীরেন্দ্রকৃষ্ণ ভদ্র সহ উত্তম কুমারের বাড়িতেও হয়েছে বেশ কিছু দৃশ্যের শ্যুটিং। তালিকায় থাকছে কলকাতার আরও নানা জায়গা। তবে ছবি মুক্তির তারিখ এখনও ঘোষণা করেননি নির্মাতারা। তাই কবে পর্দায় দেখা যাবে সিনেউত্তমকে তা জানতে খানিক সময় অপেক্ষা করতে হবে।