বালুরঘাট: তবলিগে অংশ নেওয়া দক্ষিণ দিনাজপুরের চারজনকে শনাক্ত করলো স্বাস্থ্যদফতর। তাঁদের একজন বাদে বাকি তিনজনকেই ফেসিলিটি কোয়ারেন্টাইনে ভর্তি করা হয়েছে। প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, চারজনের মধ্যে দুইজন গঙ্গারামপুর একজন হিলি ও একজন কুমারগঞ্জের। গঙ্গারামপুরের একজন বাড়িতেই রয়েছেন। তবে পরিবার ও আত্মীয়রা বাধা দেওয়ায় বুধবার সন্ধ্যে পর্যন্ত প্রশাসন তাঁকে ফেসিলিটি কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে আনতে পারেনি।

প্রায় ঘন্টাখানেক ধরে বোঝানোর পর বাকিদের নিয়ে যাওয়া হয় আইসোলেশনে। তবলিগের অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে গত ১০ মার্চ তাঁরা দিল্লি থেকে রওনা দিয়ে ১২তারিখে জেলায় ফেরেন। প্রত্যেকেই নিজামুদ্দিনে গিয়ে মার্কজের অনুষ্ঠানে অংশ নিয়েছিলেন।

এই ব্যাপারে দক্ষিণ দিনাজপুরের মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক ডক্টর সুকুমার দিয়ে জানিয়েছেন, তবলীগে ধর্মীয় অনুষ্ঠানে এই রাজ্যের মোট ৭৩জন ছিলেন। তাঁদের মধ্যে এখনও চারজনকে সনাক্ত করা গিয়েছে। যাঁরা গত ১০মার্চ সেখান থেকে রওনা দেন। তাঁদের প্রত্যেকেই ফেসিলিটি কোয়ারেন্টাইনের আওতায় নেওয়া হয়েছে। প্রসঙ্গত, পশ্চিমবঙ্গ থেকে ৭১ জন নিজামউদ্দিন মসজিদের সমাবেশে অংশ নিয়েছিলেন। বুধবার নবান্নে সাংবাদিক বৈঠকে এই তথ্য দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

সেইসঙ্গে তিনি জানিয়েছেন, ৭১ জনের মধ্যে ৫৪ জনকে ইতিমধ্যেই কোয়ারান্টাইনে পাঠানো হয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী জানান, এই ৫৪ জনের মধ্যে ৪০ জনই বিদেশি। এদিন মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “আমরা অনেক পরে জানতে পেরেছি। আগে থেকে জানলে সেইমত ব্যবস্থা নিতাম।

কেন্দ্রীয় সরকার আমাদের জানিয়েছে, এরাজ্যের ৭১ জন আছে। আমরা ক্রস চেক করে অলরেডি ৫৪জনকে কোয়ারান্টাইনে পাঠিয়ে দিয়েছি। এদের মধ্যে ৪০ জন বিদেশি।মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়ার লোক রয়েছে।” মুখ্যমন্ত্রী এদিন বলেন, “ভয় পাবেন না। নিজামুদ্দিনে যারা গিয়েছিলেন তাঁরা সরকারের সঙ্গে সহযোগিতা করুন।”