কলকাতা: আমাদের দেহের হাড় শরীরের গঠন বজায় রাখার পাশপাশি মাংসপেশীগুলিকেও ঠিক রাখে। একই সঙ্গে হাড় আমাদের শরীরের অন্য অঙ্গ-প্রত্যঙ্গকে সুরক্ষা দেয়। তাই হাড়ের যত্ন নেওয়া খুব জরুরি। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে হাড়ের শক্তি কমতে শুরু করে। ৩০ বছর পর থেকে বেশিরভাগ মানুষের হাড় দুর্বল হতে শুরু করে। হাড়ের দুর্বল হওয়া ফ্র্যাকচারের ঝুঁকি বাড়ায়। তবে এমন কয়েকটি ইঙ্গিত রয়েছে যা থেকে বোঝা যায় আপনার হাড়গুলি দুর্বল হচ্ছে। তাই কোনোভাবেই সেগুলিকে অবহেলা করা উচিৎ না।

মাড়ির দুর্বলতা: হাড় দুর্বল হওয়ার কারণে মাড়ির সমস্যা হয়। চোয়ালের হাড় দাঁতে আঁকড়ে ধরে থাকে এবং বয়সের পরে এটি অন্যান্য হাড়ের মতো দুর্বল হয়ে যায়। চোয়াল ভেঙ্গে যাওয়ার কারণে দাঁতের মাড়ি থেকে দাঁত বেরিয়ে আসে। চোয়াল দুর্বল হওয়ার কারণে দাঁত খারাপ হতে পারে।

মুঠোর দুর্বলতা: বেশ কিছু গবেষণা বলছে, হাতের কব্জি, বা মুঠোর শক্তি থেকে হাড়ের ঘনত্বের একটি ধারণা পাওয়া যেতে পারে। তাই যদি মুঠো আলগা হয় বা জোড় না পাওয়া যায়, তবে হাড়ের স্বাস্থ্য নিয়ে ভাবার সময় এসেছে।

নখ ভাঙা: যদি আপনার নখ ঘন ঘন ভেঙে যায় তবে এটি শরীরে ক্যালসিয়াম এবং কোলাজেনের অভাবে হতে পারে। এই উভয় পুষ্টিই শক্তিশালী হাড়ের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ হিসাবে বিবেচিত হয়। দুর্বল নখ হলে হাড়ের দিকে দৃষ্টি দেওয়া দরকার বলে মনে করা হয়।

পেশী এবং হাড়ের ব্যথা: ভিটামিন ডি, ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম এবং পটাসিয়াম সহ কিছু ভিটামিন এবং খনিজ হাড়ের স্বাস্থ্যের জন্য প্রয়োজনীয়। এগুলির অভাবে শরীরে পেশী এবং হাড়ের ব্যথা হতে পারে। শরীরে যদি এই ভিটামিন এবং খনিজগুলির ঘাটতি থাকে তবে তা হাড় ক্ষয় হতে পারে।

বডি বেন্ড: শরীর সামনে ঝুঁকতে থাকলে তা দুর্বল হাড়ের প্রাথমিক লক্ষণ হতে পারে। অতিরিক্ত ওজন ছাড়াই, যদি আপনার মেরুদণ্ড বাঁকানো হয় বা খারাপভাবে বসে থাকার কারণে মেরুদণ্ডের চারপাশের পেশীগুলি দুর্বল হতে শুরু করে, তবে সম্ভবত আপনার হাড় দুর্বল হতে শুরু করেছে।

জেলবন্দি তথাকথিত অপরাধীদের আলোর জগতে ফিরিয়ে এনে নজির স্থাপন করেছেন। মুখোমুখি নৃত্যশিল্পী অলোকানন্দা রায়।