প্রদ্যুত দাস, জলপাইগুড়ি: মিড ডে মিলে মিষ্টি। এই ঠাণ্ডায় একটু অন্যরকম খাবার পেয়ে খুশি ছাত্র থেকে অভিভাবক সকলেই। জলপাইগুড়ি ফণীন্দ্রদেব প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা বুধবার পৌষসংক্রান্তি উপলক্ষে বিদ্যালয়ের প্রায় ৬০০ ছাত্রকে মিষ্টি খাওয়াল। ছাত্রদের পাশাপাশি অভিভাবকদেরও খাওয়ানো হল মিষ্টি। ছাত্রদের খাওয়াতে পেরে খুশি বিদ্যালয়ের শিক্ষকরাও।

জলপাইগুড়ি ফনীন্দ্রদেব বিদ্যালয়ে প্রাথমিক বিভাগে ছাত্র সংখ্যা প্রায় ৬০০। বিদ্যালয়ের ছাত্রদের মধ্যে একটা বৃহৎ অংশ দরিদ্র পরিবারের থেকে আসা। সেই কারণেই শিক্ষকদের মাথায় আসে ছাত্রদের পৌষ সংক্রান্তি উপলক্ষে পিঠে পায়েস খাওয়াবে। কিন্তু ছাত্র সংখ্যা এতো বেশি হওয়ায় পিঠে বানাতে প্রচুর সময়ের দরকার। তাই ১৫ লিটার দুধ দিয়ে পায়েস বানিয়ে ছাত্রদের মুখে তুলে দিল শিক্ষকরা।

আজকের মিড ডে মিলের মেনুতে ছিল খিচুরি ও পায়েস। শীতের সকালে ছাত্ররা গরম খিচুরি ও গরম পায়েস পেয়ে প্রচণ্ড খুশি। বিদ্যালয় ছুটির সময় ছাত্রদের নিতে আসা অভিভাবকদেরও বিদ্যালয়ের ভিতরে নিয়ে এক বাটি করে পায়েস খাওয়ানো হল।

আজ একটু অন্যরকম খাওয়ার খাওয়াতে পেরে যেমন খুশি শিক্ষকরা তেমনি খাবার খেয়ে খুশি ছাত্র ও অভিভাবকরা।

বিদ্যালয়ের শিক্ষক অরিন্দম ভট্টাচার্য বলেন, আমাদের বিদ্যালয়ে এমন প্রচুর ছাত্র রয়েছে যারা গরিব পরিবারের৷ তাই তাদের অনেকেরই বাড়িতে পিঠে পায়েস হয় না৷ পৌষসংক্রান্তি উপলক্ষে আমরা সবাই বাড়িতে পিঠে পায়েস খেয়ে থাকি৷কিন্তু এই গরিব পরিবারের ছাত্ররা সেটা পায়না৷ তাই আমরা বিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে পায়েসের ব্যবস্থা করেছি। আগামীতে আমরা পিঠেও খাওয়ানোর চিন্তা ভাবনা নিয়েছি।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও