নিউজ ডেস্ক, কলকাতা: ভোটে জিতেছেন বিপুল মার্জিনে। তবে পার্লামেন্টের সামনে সেলফি তুলে আলোড়ন ফেলে দিয়েছেন বাংলার দুই নায়িকা। কেউ সমালোচনা করছেন, কেউ আবার অভিনেত্রীদের পাশে দাঁড়াচ্ছেন। রীতিমত আলোচনার ঝড় তুলে দিয়েছেন দুই তরুণী সাংসদ।

এবার টলিউডের আর এক অভিনেত্রীর সমর্থন এগিয় এল মিমি-নুসরতের জন্য।

আসলে পশ্চিমি পোশাকে পার্লামেন্টর সামনে দাঁড়িয়ে ছবি তুলেছেন মিমি ও নুসরত। আর তারপর থেকেই ট্রোলের শিকার দু’জনে। নানা ধরনের মন্তব্য ছুঁড়ে দেওয়া হচ্ছে তাঁদের দিকে। অনেকেই এই ধরনের পোশাক পরে পার্লামেন্টে যাওয়ার বিষয়টা মেনে নিতে পারছেন না।

স্বস্তিকা তাঁর দুই অভিনেত্রী সহকর্মীর পাশে দাঁড়িয়ে ট্যুইটারে লিখেছেন, ”বেশ করেছে পার্লামেন্টের সামনে ছবি তুলেছে। আমরা তো শুতে বসতে সবসময়ই ছবি তুলি। এটা তাঁদের কাছে একটা গুরুত্বপূর্ণ দিন। মানুষই তাঁদের ভোট দিয়ে নির্বাচিত করেছেন। তাঁদের সংসদে যাওয়ার অধিকার রয়েছে। কোড অফ পার্লামেন্টে কোথাও বলা নেই যে জিন্স পরে সেখানে যাওয়া যাবে না। তো দয়া করে এধরনের অকারণ সমস্যা তৈরি করা বন্ধ করুন।”

এখানেই থেমে থাকেননি, সোশ্যাল মিডিয়ায় মিমি ও নুসরতকে নিয়ে যাঁরা সমালোচনা করেছেন তাঁদের অনেককেই পাল্টা জবাব দিয়েছেন স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়কে।

একজন লিখেছেন, এরা যেন লোকসভার ভিতরে ডেকোরাম মেনে চলেন। জবাবে স্বস্তিকা বলেছেন, ”কেন তোমার মনে হচ্ছে যে এরা ডেকোরাম মানতে পারবে না? এরা কি গরু চরাতে চরাতে একদিন হঠাৎ ওখানে পৌঁছে গেছে?” এভাবেই একের পর এক জবাব দিচ্ছেন তিনি।

আসলে, প্রথমবার সংসদে গিয়ে বিভিন্ন পোজে ছবি তুলে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করছিলেন মিমি চক্রবর্তী ও নুসরত জাহান। কিছুক্ষণের মধ্যেই সে ছবি সোশ্যাল মিডিয়াতে ছড়িয়ে পড়ে। তবে অবশ্য শুধু স্বস্তিকাই নন, সোশ্যাল মিডিয়ায় অনেকেই মিমি-নুসরতকে অকারণ আক্রমণ করার প্রতিবাদ জানিয়েছেন।