কলকাতা : বহুদিন বাদে মূল্যবান জিনিস খুঁজে পেলে কার না ভালো লাগে? টাও যদি কোন প্রিয় বন্ধুর ছবি হয় তাহলে তো কোন কথাই নেই। আর এমনটাই হয়েছে স্বস্তিকার সঙ্গেও। তিনি খুঁজে পেয়েছেন একটা সুন্দর ছবি। প্রায় ৬ বছর আগের একটি ছবি খুঁজে পেয়েছেন স্বস্তিকা। ছবিতে দেখা যাচ্ছে পার্নো, স্বস্তিকা কে হাগ করে রয়েছেন। ‘আমি এবং আমার গার্ল ফ্রেন্ডের’ ছবির শুটিংয়ের ফাঁকে তোলা এই ছবি৷ যেখানে পার্টি মুডে দেখা যাচ্ছে দু’জনকে৷ সেই ছবি ইনস্টাগ্রামে শেয়ার করেছেন অভিনেত্রী স্বস্তিকা৷

সম্প্রতি নিজের মেয়ে অন্বেষার কয়েকটি ছবি পোস্ট করেছিলেন সোশ্যাল মিডিয়ার৷ যার ক্যাপশনে সরগরম ছিল নেটদুনিয়া৷ “যখনই তুমি হাসো, মনে হয় পৃথিবীতে তোমার থেকে সুন্দর আর কেউ নেই” স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়ের এমনই ক্যাপশনে সকলের ভুরু কুঁটকোতে শুরু করেছে৷ কার জন্য এমন লিখেছেন তিনি৷ তাহলে আবার কারও প্রেমে পড়লেন নায়িকা৷ এমনই নানা প্রশ্ন উঠত যদি এটা একটা স্টেটাস হত৷ তবে ছবিতে অন্বেষাকে দেখে বোঝা গিয়েছিল তিনিই ক্যাপশনের কারণ৷

নিজের ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে চিরকালই খোলামেলাভাবেই কথা বলে এসেছেন অভিনেত্রী৷ তাই তিনি যাই পোস্ট করেন তা একেবারে সরাসরি করেন৷ কোনও ইনডিরেক্ট পদ্ধতিতে বিশ্বাসী নন স্বস্তিকা৷ তাই সোশ্যাল মিডিয়ায় স্তনের ছবি পোস্ট করতে দু’বার ভাবেননি। তাতেই আরও একবার ভাইরাল হয়ে গিয়েছিলেন অভিনেত্রী। ছাঁচে ফেলা গতানুগতিক জীবন তাঁর না পসন্দ। সমাজের তোয়াক্কাও তিনি করেন না তেমন। খোলা আকাশে ডানা মেলে উড়ে বেড়ানো তাঁর স্বভাব।

শিল্পী মারিয়াস স্পারলিচের ছবি নিজের ইনস্টা অ্যালবামে পোস্ট করেছিলেন স্বস্তিকা। যাঁর ক্যাপশনে দিয়েছিলেন, “নারী শরীরের স্তনবৃন্তের ছবি সোশ্যাল মিডিয়া পোস্ট করতে দেয় না।’ একই সঙ্গে তিনি আরও লিখেছেন, “আপনারা এই চিত্রশিল্পীদের যা খুশি বলতে পারেন, কিন্তু এঁরা তার থেকেও অনেক বেশি কিছু। আদতে আমাদেরই একজন। এঁরা আমাদের সমাজকে প্রতিফলিত করে, নারী শরীর নিয়ে সমাজের রক্ষণশীলতা ও নীতিপুলিশগিরিকেই তুলে ধরে। সোশ্যাল মিডিয়ার নীতির পরিবর্তন করতে গেলে আগে আমাদের পালটাতে হবে।”

এখন সোশ্যাল মিডিয়ায় নতুন ট্রেন্ড বডি-শেমিং৷ যার শিকার সকল মহিলা। যদিও এটা সোশ্যাল মিডিয়ার সমস্যা নয়, সমস্যা সমাজের, মানসিকতার। তাই গোদা বাংলায় এই পোস্টের মাধ্যমে নারী শরীরকে শালীনতার মাপকাঠিতে মাপা সমাজকে একহাত নিয়েছেন তিনি। প্রসঙ্গত, স্বস্তিকার বলি-সফরের রেলগাড়ি প্রথম স্টেশন ছাড়িয়ে দ্বিতীয় স্টেশনে পা রেখেছে। আর এবারও তাঁর সফর সঙ্গী সেই সুশান্ত সিং রাজপুত। বিখ্যাত কাস্টিং ডিরেক্টর মুকেশ ছাবরার প্রথম হিন্দি ছবিতে দেখা যাবে অভিনেত্রীকে। বিপরীতে শোনা যাচ্ছে, বাঙালি অভিনেতা শাশ্বত চট্টোপাধ্যায়ের নাম।