তমলুকঃ রাজ্যে যেখানে গেরুয়া শিবিরের ঝড়, সেখানে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার অধিকারী গড়ে সেই ঝড়ের প্রভাব তেমনটা পড়ল না। লক্ষাধিক ভোটের ব্যবধানে বিজেপি প্রার্থীদের পরাজিত করল তৃণমূল। নিজের খাস তালুকে মুখ রক্ষা হল শুভেন্দু অধিকারীর।

পূর্ব মেদিনীপুর জেলার দুটি লোকসভা কেন্দ্র একটি তমলুক অপরটি কাঁথি। দুটি লোকসভাতেই ভোট বাড়িয়েছে বিজেপি। যদিও বিজেপির ভোট বৃদ্ধিতে চিন্তিত নয় তৃণমূল। তৃণমূল মনে করছে তারা তাদের ভোট ধরে রেখেছে। বাম রামের সঙ্গে আঁতাত করায় কিছু ভোট বিজেপি পেয়েছে। ২০১৬ এর উপনির্বাচন ও ২০১৯ এর ফলাফলের দিকে তাকালেই তা পরিস্কার হয়ে যায় বলে মনে করছে বিজেপি।

দেখে নেওয়া যাক, ২০১৬ সালে তমলুক লোকসভা নির্বাচনে ভোট বিন্যাস। তৃণমূল – দিব্যেন্দু অধিকারী- তার প্রাপ্ত ভোট ৭৭৯৫৯৪। সিপিএম-মন্দিরা পন্ডা তার প্রাপ্ত ভোট ২৮২০০৬, আর বিজেপি- অম্বুজাক্ষ মহান্তি, তার প্রাপ্ত ভোট- ১৯৬৪৫০। ২০১৬ সালে উপনির্বাচনে সিপিএম ভোট পেয়েছিল ২৮২০৬ আর ২০১৯ সালে লোকসভা নির্বাচনে ভোট পেয়েছে ১৩৫২৭৫টি। আবার যদি দেখা যায় ২০১৬ সালে উপনির্বাচনে বিজেপি ভোট পেয়েছিল ২৯৬৪৫০ টি ভোট আর ২০১৯ সালে নির্বাচনে ভোট পেয়েছে ৫৩১৪২৮টি ভোট।

২০১৯ সালে সিপিএমের ভোট কমেছে ৩৩৪৭৮ টি। ফলে বিজেপির ভোট বৃদ্ধি হয়েছে এমনটা মনে করছে তৃণমূল নেতৃত্বরা। তবে জয়ের পরে তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থী দিব্যেন্দু অধিকারী জানান, আগামীদিন দলিয় নেতৃত্বদের নিয়ে আলোচনার মধ্যে দিয়ে কোথায় কি কারনে ভোটাররা মুখ ফিরিয়ে নিয়েছেন তা আলোচনা করা হবে।

পূর্ব মেদিনীপুরের দুই লোকসভা তমলুক ও কাঁথি কেন্দ্রের বিধানসভা ভিত্তিক বিস্তারিত ফলাফল

১।তমলুক কেন্দ্র –

দিব্যেন্দু অধিকারী (তৃণমূল) (মোট প্রাপ্ত ভোট – ৭,২৪,৪৩৩টি)
তমলুক – ৯৩,৬৮০, পাঁশকুড়া পূর্ব – ৭৯,৪৩৭, ময়না – ১,০০,৮৮০, নন্দকুমার – ৯৭,৪৭৪, মহিষাদল – ৯৬,২১৫, হলদিয়া – ১,২৫,২৯৫, নন্দীগ্রাম – ১,৩০,৬৫৯

সিদ্ধার্থ নস্কর (বিজেপি) (মোট প্রাপ্ত ভোট – ৫,৩২,৮৪৪টি)
তমলুক – ৮৭,১৩২, পাঁশকুড়া পূর্ব – ৭২,০৫৭, ময়না – ৮৮,৪৯৭, নন্দকুমার – ৮২,১১৬, মহিষাদল – ৭৯,২৯৯, হলদিয়া – ৬১,৪৭৫, নন্দীগ্রাম – ৬২,২৬৮

সেক ইব্রাহিম আলি (সিপিএম) (মোট প্রাপ্ত ভোট – ১,৩৫,৮৬২টি)
তমলুক – ২৭,৯৫৮, পাঁশকুড়া পূর্ব – ২১,০৫৪, ময়না – ১২,৩৮৯, নন্দকুমার – ২৪,৯১৮, মহিষাদল – ২১,৮৩৫, হলদিয়া – ১৮,৩৫৫, নন্দীগ্রাম – ৯,৩৫৩

২। কাঁথি কেন্দ্র –

শিশির অধিকারী (তৃণমূল কংগ্রেস) (মোট প্রাপ্ত ভোট – ৭,১১,৮৭২টি ভোট)
চন্ডীপুর – ৯৯,৫৭৩, পটাশপুর – ৯৮,৮৫৪, কাঁথি (উঃ) – ১,০৪,১৫২, ভগবানপুর – ১,১৭,১৯৭, খেজুরি – ৯৬,৫০৬, কাঁথি দক্ষিণ – ৯৩,৭৯২, রামনগর – ৯৮,৮৬৫

দেবাশিষ সামন্ত (বিজেপি) (মোট প্রাপ্ত ভোট –৬,০০,২০৪টি ভোট)
চন্ডীপুর – ৮৪,১১০, পটাশপুর – ৮৪,৪৫২, কাঁথি (উঃ) – ৯১,২৮১, ভগবানপুর – ৭৯,৮০৬, খেজুরি – ২০,৯৫৩, কাঁথি দক্ষিণ – ৭৪,৭৭৭, রামনগর – ৯০,৯২৭

পরিতোষ পট্টনায়ক (সিপিআইএম) (মোট প্রাপ্ত ভোট – ৭৬,১৮৫টি ভোট)
চন্ডীপুর – ১৭,১১৯, পটাশপুর – ৮,৭২৫, কাঁথি (উঃ) – ১১,৭৫৭, ভগবানপুর – ১১,৭৫০, খেজুরি – ৭,২১৫, কাঁথি দক্ষিণ – ২,৭১৮, রামনগর – ২,৫৮৬