ফাইল ছবি

প্রতীতি ঘোষ, বনগাঁ : এবার দাদার অনুগামী পোস্টার পড়লো উত্তর ২৪ পরগনার বনগাঁতে। রাজ্যব্যাপী রাজনৈতিক মহলে তাঁকে নিয়ে আলোচনা এখন তুঙ্গে। শুধু মেদিনীপুর নয় সারা বঙ্গেই তাঁর অনুগামীর সংখ্যা প্রচুর। এবার রাজ্য তৃনমূল কংগ্রেসের সাধারন সম্পাদক তথা মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীর নামে ছবিসহ পোস্টার পড়লো বনগাঁতে ৷

বুধবার বনগাঁর যশোহর রোডের পাশে বেশ কয়েকটি গাছে শুভেন্দু অধিকারীর অনুগামীদের নামে প্রচার করা এই পোস্টার দেখা যায়। পোস্টারে লেখা হয়েছে তাঁরা শুভেন্দু অধিকারীর সঙ্গে আছেন। তাঁরা শুভেন্দু অধিকারীর সঙ্গে থেকে লড়াই করতে চান।

স্বভাবতই সারা রাজ্যে যখন তাঁকে নিয়ে আলোচনা যখন তুঙ্গে তখন তাঁর ঘাটি মেদিনীপুর থেকে কয়েকশো কিমি দূরে সুদুর বনগাঁতে তাঁকে নিয়ে এই পোস্টার চাঞ্চল্য ছড়াচ্ছে বনগাঁর রাজনৈতিক মহলে |

প্রসঙ্গত, বেশ কয়েকমাস ধরেই শুভেন্দু অধিকারী বাংলার রাজনৈতিক মহলে আলোচনার এক প্রধান বিষয়বস্তু হয়ে উঠেছিলেন। একাংশ মানুষ ভাব ছিলেন খুব তাড়াতাড়ি দল ত্যাগ করবেন শুভেন্দু। তিনি নিজে কোনও দল ও করতে পারেন অথবা যোগদান করতে পারে’ন অন্য কোনও দলে।

তাঁর সভাগুলিতে অনুগামীদের ভিড় ও হচ্ছিলো চোখে লাগার মত ৷ যদিও এই বিষয়ে কখনও সরাসরি মুখ খোলেননি তিনি ৷ বুধবার বনগাঁতে তাঁর নামের পোস্টার পড়ার বিষয়ে উঃ ২৪ পরগনা জেলা তৃনমূল কংগ্রেসের মেন্টর গোপাল শেঠ বলেন, “শুভেন্দু অধিকারী তৃনমূল কংগ্রেসের নেতা , তিনি রাজ্যের মন্ত্রী | বনগাঁতে অনেক তৃনমূল নেতার ছবিসহ পোস্টার আছে। তাঁর ও থাকতে পারে।”

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।