কলকাতা: বুধবার দেশজুড়ে ডাকা বনধে পথে বেরিয়ে সরকারি বা বেসরকারি গাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হলে সেই গাড়ির ক্ষেত্রে ৬ লক্ষ টাকা পর্যন্ত বিমার ব্যবস্থা করা হবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন পরিবহণ মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী৷ একাধিক দাবিতে বুধবার কেন্দ্রীয় ট্রেড ইউনিয়নগুলি ভারত বনধের ডাক দিয়েছে৷ এরাজ্যেও বনধের সমর্থনে বুধবার পথে নামবে বামেরা৷ বনধে পরিবহণ ব্যবস্থা সচল থাকবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন পরিবহণ মন্ত্রী৷

বনধের দিন পথে বেরিয়ে সরকারি বা বেসরকারি গাড়ি আগেও একাধিকবার ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে৷ আর তাই বিশেষত বেসরকারি গাড়িমালিকরা বনধের দিন পথে গাড়ি নামাতে রাজি হন না৷ মঙ্গলবার বেসরকারি গাড়িমালিকদের উদ্দেশ্যে পরিবহণমন্ত্রীর আশ্বাস বনধের দিন পথে গাড়ি নামান, নিরাপত্তার সব ব্যবস্থা করা হবে৷ একইসঙ্গে বনধের দিন গাড়ির কোনও ক্ষতি হলে ৬ লক্ষ টাকা পর্যন্ত বিমার ব্যবস্থা করা হবে৷

এরই পাশাপাশি বনধ সমর্থনকারীদের উদ্দেশেও এদিন হুঁশিয়ারি দিয়েছেন পরিবহণমন্ত্রী৷ বনধে সম্পত্তি ভাঙচুর হলে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে এফআইআর দায়েরের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এই প্রসঙ্গে পরিবহণ মন্ত্রী আরও বলেন, ‘বেসরকারি বাস সংগঠন, ট্যাক্সি ও অ্যাপ ক্যাব সংস্থাগুলি স্বাভাবিক নিয়মেই অন্য দিনের মতোই পরিষেবা দিতে প্রতিশ্রুতি দিয়েছে।’

এরই পাশাপাশি বুধবার অতিরিক্ত সরকারি বাস পথে নামবে বলে জানিয়েছেন পরিবহণমন্ত্রী শুভেন্দু আধিকারী। শুভেন্দু অধিকারী জানান, ডব্লিউবিটিসি বুধবার প্রায় ১২০০ বাস রাস্তায় নামাবে। অন্যদিন সরকারি ওই সংস্থা ৯০০ বাস রাস্তায় নামায়। এসবিএসটিসি ৮২৬টি বাস রাস্তায় নামাবে৷ অন্যদিন এসবিএসটিসি ৭০০ বাস রাস্তায় নামায়। একইসঙ্গে উত্তরবঙ্গ পরিবহণ সংস্থা ৬৫৫টি বাস বুধবার পথে নামাবে।

বুধবারের বনধের ইস্যুগুলি সমর্তন করলেও বনধকে সমর্থন করছেন না মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ বনধের দিন রাজ্য স্বাভাবিক রাখতে প্রশাসন সব ব্যবস্থা নেবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ একইভাবে সরকারি কর্মীদেরও বনধে হাজিরা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে৷ বুধবারের ধর্মঘটে কোনও সরকারি কর্মী গরহাজির থাকলে একদিনের বেতন কাটবে রাজ্য সরকার৷ একইসঙ্গে চাকরিজীবন থেকেও একদিন কমে যাবে৷ নবান্নের তরফে বুধবারের বনধ নিয়ে এমনই নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে৷

কেন্দ্রীয় নীতির প্রতিবাদে বুধবার দেশব্যাপী বনধের ডাক দিয়েছে কেন্দ্রীয় শ্রমিক সংগঠনের একটি মঞ্চ।