কলকাতা: রাজ্যের শাসকদলের একাধিক নেতা-মন্ত্রীর পর এবার করোনার সংক্রমণ ধরা পড়ল রাজ্যের অন্যতম মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীর শরীরে। পরিবহণ মন্ত্রীর বৃদ্ধা মাও করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। কয়েকদিন আগে তাঁদের পরিবারের এক খুদে সদস্যের শরীরেও করোনার সংক্রমণ ধরা পড়েছিল। শুভেন্দুবাবু ও তাঁর মায়ের করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসায় চিন্তায় অধিকারী পরিবার।

বৃহস্পতিবার দুপুরে শুভেন্দু অধিকারীর অ্যান্টিজেন টেস্ট করার পর প্রথম পজিটিভ রেজাল্ট পাওয়া যায়। এর পরেই আরটি-পিসিআর টেস্ট তথা সোয়াব টেস্ট করা হয়। তাতেও রিপোর্ট আসে করোনা পজিটিভ।

জানা গিয়েছে, মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী এবং তাঁর মা দুজনেই করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। উপসর্গ থাকায় বৃহস্পতিবার পাঁশকুড়া সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে তাঁদের অ্যান্টিজেন টেস্ট হয়। তাতে পজিটিভ রিপোর্ট আসায় আরটিপিসিআর টেস্ট হয়। তাতেও পজিটিভ রেজাল্ট আসে।

বৃহস্পতিবার রাতেই দু’জনকে কলকাতার একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পূর্ব মেদিনীপুরের জেলাশাসক পার্থ ঘোষ জানিয়েছেন, পরিবহণ মন্ত্রী এবং তাঁর মা কোভিড পজিটিভ। এদিকে স্ত্রী ও ছেলের করোনা আক্রান্ত হওয়ার খবরে স্বভাবতই দুশ্চিন্তায় তৃণমূলের বর্ষীয়ান সাংসদ শিশির অধিকারী।

তিনি বলেন, ‘‘ছেলে এবং তাঁর মা দুজনেই কলকাতায় একটি হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।’’ পরিবহণমন্ত্রীর বাবা তথা প্রাক্তন কেন্দ্রীয় গ্রামোন্নয়ন প্রতিমন্ত্রী ও কাঁথির সাংসদ শিশির অধিকারীরও বয়স হয়েছে। তাঁর বয়স প্রায় ৭৯ বছর। এমনিতেই কোভিডে বয়স্কদের ঝুঁকি বেশি। তাই তাঁর স্ত্রী গায়ত্রীদেবীর শরীরে করোনার সংক্রমণ ধরা পড়ার পর শিশিরবাবুকেও পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।