বালুরঘাট :  তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়কে এবার লেডি হিটলার বলে কটাক্ষ করলেন শুভেন্দু অধিকারী। বৃহস্পতিবার বালুরঘাটে স্থানীয় আদৰ্শস্কুল মাঠে বিজেপির জনসভা অনুষ্ঠিত হয়। এই জনসভায় প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিজেপির নন্দীগ্রামের প্রার্থী শুভেন্দু অধিকারী।

পূর্ব মেদিনীপুরের নন্দীগ্রামে ভোটের দিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে বেগম বলে কটাক্ষ করেছিলেন শুভেন্দু অধিকারী। তিনি বলেছিলেন ‘বেগম হারছেন’। আর দক্ষিণ দিনাজপুরে এসে শুভেন্দুর নজরে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এখন ‘লেডি হিটলার’।

বালুরঘাটে বক্তব্য রাখতে গিয়ে শুভেন্দু বলেন মাননীয়া উত্তরবঙ্গে এসে মিথ্যে কথা বলেন যে তিনি নাকি প্রতিমাসে আসেন। আসলে তিনি প্রতিমাসে শুধুমাত্র বেড়াতে আসেন। টাইগার হিল, চালসা, রাজাভাতখাওয়া, উত্তরকন্যা ও সেবক রোড সহ পাহাড় ও জঙ্গলের তিরিশটি প্রাসাদ গড়েছেন। যেগুলির মালিক ‘লেডি হিটলার’ মমতা বন্দোপাধ্যায়। নিজের জন্য ২৬ টি হেলিপ্যাড বানিয়েছেন। যার হেলিকপ্টারের ভাড়া মেটায় রাজ্য সরকার।

রাজনৈতিক অভিজ্ঞতার নিরিখে আগামী ২ মের ফলাফল সম্পর্কে শুভেন্দু বলেন যে রাজ্যে সরকার গড়তে তাঁদের আর মাত্র ৫০টির মতো আসন দরকার। ইতিমধ্যেই ১৫৩ টি আসনের ভোট গ্রহণ হয়ে গেছে। তিনি বলেন, ছাত্র আন্দোলন থেকে উঠে এসেছি। দীর্ঘ ১৫ বছর তিনি কাউন্সিলর ছিলেন। যার ফলে তিনি মাটির গন্ধ খুব ভালো করে চেনেন। বিজেপিকে সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেতে আর মাত্র পঞ্চাশটির মতো আসন প্রয়োজন।

তৃণমূলের তরফ থেকে বারংবার নরেন্দ্র মোদির ও অমিত শাহ তথা বিজেপিকে বহিরাগত বলে সম্বোধনেরও সমালোচনা করতে ছাড়েননি শুভেন্দু অধিকারী। এই ব্যাপারে তিনি জোরের সঙ্গে দাবি করে বলেন যে একমাত্র বিজেপিই হলো বাঙালির নিজস্ব পার্টি। জনসভায় শুভেন্দু অধিকারী বলেন বিজেপি দলটির আদৰ্শ তৈরী করেছিলেন এই বাংলারই ডঃ শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়। যেখানে তৃণমূল দলটা তৈরী হয়েছে কংগ্রেস ভেঙে। আর বামফ্রন্ট এসেছে বিদেশ থেকে। একমাত্র ডঃ শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ই একদেশ এক বিধান দাবিতে আন্দোলন করেছিলেন।

বালুরঘাটের দলীয় প্রার্থী ডক্টর অশোক মুখোপাধ্যাযয়ের সমর্থনে জনসভায় শুভেন্দু অধিকারী রাজ্যের কর্মসংস্থান ও বেকার সমস্যার কথাও তুলে ধরেন। তাঁর অভিযোগ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যে সাড়ে পাঁচ লক্ষ স্থায়ী চাকরির পোস্ট তুলে দিয়েছেন। তিনি চাকরি দিয়েছেন দেড় দুই হাজার টাকা বেতনের বন-বন্ধু, আশাকর্মী ও মাত্র আট হাজার টাকার সিভিকের চাকরি। কম বেতন ও চাকরির নিরাপত্তা না থাকায় এখন সিভিক ভাইয়েরা বিয়ে করতে গেলে মেয়ে পান না বলেও তিনি অভিযোগ করেছেন।

পাশাপাশি দিদি ও পিসি শব্দেরও সমালোচনা করেছেন। তিনি বলেন মমতা বন্দোপাধ্যায় এখন আর দিদি নেই, তিনি পিসি হয়ে গেছেন। যতদিন দিদি ছিলেন ততদিন তাঁরা তৃণমূলেই ছিলেন। আর যেদিন পিসি হয়েছেন তাঁরা সেদিন টাটা বাই বাই করে চলে এসেছেন।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.