বিশাখাপত্তনম: বঙ্গোপসাগর অন্ধ্র উপকূলবর্তী বিশাখাপত্তনম শহরের ট্রাফিক পুলিশের ওয়েবসাইট হ্যাক হল পাকিস্তান থেকে। গত রবিবার দুপুরে ওয়েবসাইটটি হ্যাক করে সেখানে ভারতবিদ্বেষী বিভিন্ন কন্টেন্ট পোস্ট করে দেয় হ্যাকাররা। 'টিম পাকিস্তান সাইবার অ্যাটাকারস' নামের একটি ওয়েবের মাধ্যমে হ্যাক করা হয়েছিল বলে জানানো হয়েছে ভাইজাগ পুলিশ সূত্রে। কাশ্মীরের মুসলিমদের উপর ভারতীয় সেনাবাহিনীর ‘অত্যাচারে’র প্রতিশোধ নেওয়ার জন্যই বিশাখাপত্তনমের ট্রাফিক পুলিশের ওয়েবসাইট হ্যাক করা হয়েছে বলে দাবি করে হ্যাকার গোষ্ঠী। 

বন্দর শহর বিশাখাপত্তনম পুলিশ সূত্রে জানানো হয়েছে যে, ট্রাফিক পুলিশের ওয়েবসাইট যে কম্পিউটার থেকে হ্যাক করা হয়েছিল তার আইপি অ্যাড্রেস ইস্তানবুলের। সম্ভবত কিছু মুসলিম কট্টরপন্থী মৌলবাদী গোষ্ঠী ক্রমাগত ভারতের সরকারি ওয়েবসাইটগুলি হ্যাক করছে। ভাইজাগের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) কে মহেন্দ্র পাত্রুদু বলেছেন, "জানি না কেন হ্যাকাররা ট্রাফিকের ওয়েবসাইট হ্যাক করল। ট্র্যাফিক পুলিশের ওয়েবসাইট থেকে তো তেমন কোনও তথ্য পাওয়া যাবে না। যদিও, আমরা বিষয়টিকে হালকা ভাবে নিচ্ছি না। কারণ, হ্যাকাররা আমাদের ওয়েবসাইটে ভারতবিদ্বেষী কন্টেন্ট পোস্ট করেছিল।" 

যদিও অন্ধ্রপ্রদেশের সাইবার অপরাধ তদন্তকারী সংস্থা রবিবার রাতের মধ্যেই হ্যাকারদের দখল থেকে মুক্ত করে ফেলে ভাইজাগ ট্রাফিক পুলিশের ওয়েবসাইটটি। দ্রুত সমস্যা সমাধানের জন্য সাইবার অপরাধ তদন্তকারী সংস্থাকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার কে মহেন্দ্র পাত্রুদু।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.