নয়াদিল্লি: এক বছর হল চলে গিয়েছেন সুষমা স্বরাজ। ভারতের রাজনীতিতে তিনি ছিলেন এক উজ্জ্বল নক্ষত্র। শুধু বাগ্মী নেত্রীই নন, বিপদে পড়লেই তিনি যেন ছিলেন ত্রাতা। দেশে হোক বিদেশে, সুষমার কাছে সাহায্য চেয়ে কাউকে বোধ হয় ফিরে যেতে হত না। পাকিস্তানের সঙ্গে যতই শত্রুতা থাকুক, সেখানরকার মানুষকে সাহায্য করতে কখনও দ্বিধাবোধ করেননি তিনি।

একসময় ভারতে চিকিৎসা করানোর জন্য এক পাক নাগরিকের ভিসার প্রয়োজন ছিল৷ সেজন্যই সুষমা স্বরাজের কাছে হিজাব আসিফ নামের ওই মহিলা সাহায্যের আবেদন জানান৷ সাহায্যও পেয়ে যান সহজেই।

ভারতের বিদেশমন্ত্রী সম্পর্কে নিজের চিন্তাভাবনা ব্যক্ত করতে গিয়ে তাঁকে ঈশ্বরের সঙ্গেও তুলনা করেন, শুধু তাই নয় তাকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবেও নাকি পাওয়ার ইচ্ছে প্রকাশ করেছেন ওই মহিলা৷

সুষমা স্বরাজের তৎপরতায় তাঁকে সাহায্যের আশ্বাস জানানো হয় ট্যুইট করে৷ সমগ্র বিষয়ে প্রশাসনের সক্রিয়তা এবং সাহায্যের মনোভাবে প্রসন্ন হয়ে ওই পাক নাগরিক সুষমা স্বরাজকে ট্যুইট করেন, ‘আমি আপনাকে কি বলব সুপারওম্যান? ভগবান? আপনার ঔদার্য্যকে ভাষায় প্রকাশ করার মতো শব্দ নেই আমার কাছে।’

আরও একটি ট্যুইটে লিখেছিলেন, ‘আপনার জন্য আমার ভালোবাসা এবং কৃতজ্ঞতা…যদি আপনি আমাদের প্রধানমন্ত্রী হতেন তাহলে এই দেশ বদলে যেত৷’

এরকম ঘটনা একটা নয়, ছিল একাধিক। বহুবার বহু পাকিস্তানি তাঁর জন্য ভারতে এসে চিকিৎসা করাতে পেরেছিলেন।

একসময় পাক অধিকৃত কাশ্মীরের এক বাসিন্দা চিকিৎসার জন্য আবেদন জানিয়েছিলেন পাকিস্তানের দূতাবাসে। কিন্তু পাকিস্তান তাঁকে কোও সাহায্য করেননি। এরপরই সুষমা বলেছিলেন, যেহেতু অধিকৃত কাশ্মীর ভারতেরইল তাই, সেখান থেকে চিকিৎসা করাতে এলে কোনও ভিসার প্রয়োজন নেই। সহজেই ভারতে এসে চিকিৎসা করিয়েছিলেন তিনি।

পপ্রশ্ন অনেক: নবম পর্ব

Tree-bute: আমফানের তাণ্ডবের পর কলকাতা শহরে শতাধিক গাছ বাঁচাল যারা