মুম্বই- অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর পরে তাঁর প্রাক্তন ম্যানেজার দিশা সালিয়ানের আত্মহত্যা ঘিরে নানারকম জল্পনা উঠে আসছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। অনেকেই দাবি করছেন দুজনের মৃত্যুর মধ্যে রয়েছে কোন রহস্য যোগ। অবশেষে দিশার পরিবার থেকে এই বিষয়ে একটি বিবৃতি প্রকাশ করা হয়েছে। ১৪ জুন বান্দ্রার ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার হয় সুশান্তের ঝুলন্ত দেহ।

পুলিশ জানিয়েছে অভিনেতা আত্মঘাতী হয়েছেন। ঘটনার তদন্ত করছে বান্দ্রা পুলিশ। ৮ জুন ১৪ তলা থেকে ঝাঁপ দিয়ে আত্মঘাতী হন সুশান্তের প্রাক্তন ম্যানেজার দিশা সালিয়ান। নেটিজেনরা দুটি মৃত্যুকে জড়িয়ে নানা রকমের কন্সপিরেসি থিওরি তুলে আনছেন। তাই দিশার পরিবার থেকে এবার বিবৃতির মাধ্যমে গুজব বন্ধ করার আবেদন করা হলো।

বিবৃতিতে বলা হচ্ছে, “আমাদের সকলের মধ্যে একটি জিনিস এক। আমরা সকলেই মানুষ এবং আমাদের অনুভব করার ক্ষমতা আছে। তাই মনে করছি আপনারা আমাদের যন্ত্রণাটা বুঝবেন। আমরা এক প্রিয়জনকে হারিয়েছি। এই হারানোর যন্ত্রণা খুবই গভীর। এই পরিস্থিতি আমাদের জন্য খুব কঠিন কারণ আমরা এখনো ওর মৃত্যু শোক থেকে বেরোতে পারিনি।”

বিবৃতিতে সোশ্যাল মিডিয়ায় চলা গুজবকে নিন্দে করা হয়েছে। বলা হয়েছে দিশা কে জড়িয়ে যে সমস্ত গুজব তৈরি হচ্ছে তাতে তার পরিবারের ভালো থাকা ব্যাহত হচ্ছে। বিবৃতিতে বলা হচ্ছে, “যে বিষয়টি সত্যি খুব খারাপ লাগছে সেটি হল অহেতুক গুজব, কন্সপিরেসি থিওরি এবং ধারণার বশবর্তী হয়ে কিছু খবর ছড়াচ্ছে আর দিশার বাবা-মা এবং প্রিয়জনদের ভালো থাকায় সেগুলি খুব প্রভাব ফেলছে।”

এরপরে বলা হচ্ছে, “আমাদের দয়া করে এই বিষয়টি থেকে বেরিয়ে আসতে সাহায্য করুন। যারা সোশ্যাল মিডিয়ায় গুজব ছড়াচ্ছে তাদের উৎসাহ দেবেন না। তারা নিজেদের স্বার্থের জন্য একজনের মৃত্যুকে ব্যবহার করছে। দিশা কারো মেয়ে ছিল, কারো বোন এবং কারো বন্ধু।

আপনাদের জীবনে এরকম একজন করে মানুষ রয়েছে। ভেবে বলুন তো আপনার কোনো প্রিয়জনের সঙ্গে এমন হলে কেমন লাগবে? আমাদের মধ্যে সহানুভূতি রয়েছে বলেই আমরা মানুষ। তাই মানুষ হোন আগে। দয়া করে ওর আত্মাকে শান্তিতে থাকতে দিন।”

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ