কলকাতা: রাজ্যে শেষ দফার ভোটেও তৃণমূল-বিজেপির বিরুদ্ধে গড়াপেটার অভিযোগ করলেন সিপিএমের রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র৷প্রেস বিবৃতি দিয়ে তিনি বলেন, যাদবপুর ও ডায়মন্ড হারবার বিজেপি তৃণমূলকে ছেড়ে দিল আর তার পরিবর্তে মথুরাপুর বিজেপিকে ছাড়ল তৃণমূল৷

রবিবার শেষ দফার ভোটে কলকাতা এবং লাগোয়া দুই ২৪ পরগনায় লোকসভা ভোট রক্তপাতহীন হলেও দিনভর বুথ দখল, ছাপ্পা ভোট এবং ভোটারদের বাধা দেওয়ার অভিযোগে সরগরম ছিল৷ডায়মন্ড হারবার লোকসভা কেন্দ্রের ফলতা ও বজবজ এলাকার বহু বুথ, যাদবপুর কেন্দ্রের বেশ কিছু এলাকা, জয়নগরের কিছু এলাকা, কলকাতা উত্তরের মধ্যে গিরীশ পার্ক, বেলেঘাটা, বেলগাছিয়া, শিয়ালদহ-সহ কিছু এলাকায় তৃণমূল বাহিনীর বিরুদ্ধে বুথ দখল বা ভোট দিয়ে দেওয়ার অভিযোগে সরব হয়েছে বিরোধীরা।

সিপিএমের অভিযোগ, যাদবপুর ও ডায়মন্ড হারবারে লাগাতার অভিযোগ জানিয়েও কমিশন বা কেন্দ্রীয় বাহিনীর তেমন সাড়া মেলেনি। অথচ মথুরাপুরে অভিযোগ পেয়ে বাহিনী তুলনায় অনেক বেশি সক্রিয় হয়েছে। এই প্রেক্ষিতেই সূর্যকান্ত মিশ্রের অভিযোগ, ‘‘আমরা লক্ষ্য করেছি, যাদবপুর, ডায়মন্ড হারবার বিজেপি তৃণমূলকে ছেড়ে দিয়েছে। বিনিময়ে মথুরাপুর তৃণমূল ছেড়ে দিয়েছিল বিজেপিকে।’’

ভোট গণনার দিনও বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হতে পারে বলে তিনি আশঙ্কা করেছেন৷ সেইকারণে দলীয় কর্মীদের সতর্ক থাকার নির্দেশ দিয়েছেন সিপিএমের রাজ্য সম্পাদক৷ কর্মীদের উদ্দেশ্যে সূর্যকান্ত মিশ্র লিখেছেন, ‘‘ইভিএম প্রহরার জন্য যথাযথ ব্যবস্থা নিন৷ গণনার সময় বিশৃঙ্খলার চেষ্টা হতে পারে৷ তা নিয়ে সতর্ক থাকতে হবে৷ শেষ পর্যন্ত দৃঢ়তা নিয়ে গণনাকেন্দ্রে থাকতে হবে৷’’

আর প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্র বলেছেন, ‘‘শেষ দফাতেও বুথ দখল, ছাপ্পা, কারচুপির অভিযোগ এসেছে বিস্তর। কমিশনের ভূমিকায় আমরা খুশি নই। তবে অন্যান্য পর্বের তুলনায় তাদের ভূমিকা একটি স্বস্তিদায়ক ছিল!’’