আহমেদাবাদ : সামনেই গণেশ চতুর্থী। অন্যান্য বছর এই সময় উৎসবের প্রস্তুতি শুরু হয়ে যায় দেশ জুড়ে। তবে এবার ছবিটা একদম আলাদা। উৎসবের চিহ্নমাত্র নেই। যে বিখ্যাত গণেশ পুজোর নাম খ্যাত দেশ জুড়ে, তারাও এই বছর নাম মাত্র পুজো করতেই ব্যস্ত। সৌজন্যে করোনা ভাইরাসের হানা।

তবে ভক্তদের কাছে গণেশ সিদ্ধিদাতা। তাঁদের মনোকামনা পূরণ করেন। তাই করোনা যাক দেশ থেকে এই কামনা নিয়েই পুজোয় মাতবেন মানুষ। যদিও থাকবে সামাজিক দূরত্ব মানা, মাস্ক পরার মতো নিয়ম। গণেশ চতুর্থীর প্রস্তুতিতে এবার নজর কেড়েছে গুজরাতের সুরাতের এক শিল্পীর তৈরি গণেশ মূর্তি। তিনি যে গণেশ মূর্তি তৈরি করেছেন, তাতে রয়েছে করোনা ভাইরাসের প্রতিকৃতি।

মূর্তিতে দেখা যাচ্ছে গণেশ করোনা ভাইরাসকে মেরে ফেলছেন। অর্থাৎ এই মূর্তি তৈরি হয়েছে করোনা ভাইরাস দমনকারী গণেশ হিসেবে। যার পায়ের কাছে রয়েছে করোনা ভাইরাসের প্রতিকৃতি। এই করোনাকেই শেষ করছেন গণেশ। এমনকি তাঁর বাহন ইঁদুরের হাতেও ঝুলছে করোনা ভাইরাস।

এই মূর্তিতে সামাজিক দূরত্ব, স্যানিটাইজার বা মাস্ক পরার গুরুত্বকেও তুলে ধরা হয়েছে। শিল্পী আশিস প্যাটেল জানাচ্ছেন বিশ্বকে এই মূর্তি তৈরি করে করোনা সম্পর্কে একটি বিশেষ বার্তা দিতে চেয়েছেন তিনি। যতই উৎসব আসুক। মানুষের জীবনের দাম তার চেয়ে বেশি। তাই সাবধানতা মেনে দরকার। সেটা যে কোনও উৎসবেই প্রযোজ্য।

এই বছর মহারাষ্ট্রের শ্রেষ্ঠ বার্ষিক উৎসব গণেশ পুজোতে থাকছে না কোনও ধুধাম। এমনকী, চোখ ধাঁধানো পুজোগুলিও নিজেদের গণেশ মূর্তির আকার ছোট করে দিয়েছে অনেক। মুম্বইয়ের লালবাগছা রাজা, সর্বশ্রেষ্ঠ পুজো হিসেবে মান্যতা পায়। এবার তাঁদের গণেশ মূর্তির উচ্চতা মাত্র ৪ ফুট রাখা হয়েছে।

একই পরিস্থিতি হায়দারাবাদেও। খইতরাবাদের গণেশ পুজোর উচ্চতা রাখা হয়েছে মাত্র ৯ফুট। শুধু এই দুই জায়গা নয়, গণেশ পুজো বিখ্যাত মহারাষ্ট্র, গোয়া, অন্ধ্রপ্রদেশ, তেলেঙ্গানা, কর্ণাটক ও তামিলনাড়ুতেও। তবে সব জায়গাতেই কোনও ধুমধাম নেই অন্যান্য বছরের মত।

হিন্দু চন্দ্র-সৌর ক্যালেন্ডার অনুযায়ী ভাদ্রমাসে গণেশ পুজোর আয়োজন করা হয়। ইংরেজি ক্যালেন্ডারে কখনও অগাষ্ট কখনও বা সেপ্টেম্বরে পুজোর আয়োজন করা হয়ে থাকে। হিন্দুরা বিশ্বাস করেন, এইদিন গণেশ তাঁর ভক্তদের মনোবাঞ্ছা পূর্ণ করতে মর্ত্যে অবতীর্ণ হন। কথিত আছে, সমস্ত শুভ কাজের শুরু শ্রী গণেশের নাম নিয়ে করলে তা সফল হয়। দেবতাদের মধ্যে তাঁকেই প্রথম পূজ্য বলে গণ্য করা হয়। গণেশ পুজো বাদ দিয়ে কোনও পুজোই সম্পূর্ণ হয় না।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও