ফাইল ছবি

নয়াদিল্লিঃ  আগামী ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে প্রাথমিক শিক্ষক পদে নিয়োগ করতে হবে ১ হাজার প্রার্থীকে। এই সংক্রান্ত এক মামলায় সুপ্রিম কোর্ট জানিয়ে দিয়েছে যে, ২০০৬ সালের নিয়োগ প্রক্রিয়ায় অংশগ্রহণকারী এবং রাজ্যের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার অভিযোগ আনা প্রার্থীদের নিয়োগ করতে হবে।

আর তা করতে হবে আগামী মাসের শেষের মধ্যে। দেশের শীর্ষ আদালত আরও জানিয়েছে যে, নির্দেশ পালন করা হল কি না, তা ২১ অক্টোবর জানাতে হবে। উল্লেখ্য, রাজ্য এদিন নির্দেশ পালন করার জন্য ছ’সপ্তাহ সময় চেয়েছিল। আর সেই পরিপ্রেক্ষিতেই সুপ্রিম কোর্ট এই নির্দেশ দিয়েছে।

মামলার সূত্রপাত রাজ্য সরকার অনুমোদিত বিভিন্ন পিটিটিআই প্রশিক্ষণপ্রাপ্তরা ২০০১ সালের ওয়েস্ট বেঙ্গল প্রাইমারি টিচার্স রিক্রুটমেন্ট রুলস অনুযায়ী বাড়তি ২২ নম্বর পাবেন কি না তা নিয়ে। প্রতিষ্ঠানগুলি রাজ্য সরকার অনুমোদিত হলেও এনসিটিই (ন্যাশনাল কাউন্সিল অব টিচার্স এডুকেশন) অনুমোদিত নয়। আর এই বিষয়টি নিয়েই কেন্দ্র এবং রাজ্যের মধ্যে আইনের সংঘাত বাঁধে বলে বাংলা এক সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবরে বলা হয়েছে। আর তা থেকেই প্রশিক্ষণপ্রাপ্তদের অযোগ্য ঘোষণা করে কলকাতা হাইকোর্ট। আর সেই পরিপ্রেক্ষিতেই সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয় এই সমস্ত প্রার্থীরা।

দীর্ঘদিন ধরে এই সংক্রান্ত মামলার শুনানি চলে। সম্প্রতি দেশের শীর্ষ আদালত জানিয়ে দেয় যে, আগামী মাস অর্থাৎ সেপ্টেম্বরের মধ্যে প্রাথমিক শিক্ষক পদে নিয়োগ করতে হবে ১ হাজার প্রার্থীকে। আর তা কার্যকর করা হল কিনা তাও আদালতকে জানানোর নির্দেশ দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট।