নয়াদিল্লি: শনিবার বিকেল চারটেয় আস্থাভোটের নির্দেশ দিল সুপ্রিম কোর্ট। শুক্রবার কংগ্রেসের করা মামলার শুনানিতে এই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এদিন শুনানির শুরুতেই শনিবার আস্থাভোটের প্রস্তাব দেয় শীর্ষ আদালত। কংগ্রেস সেই প্রস্তাবে রাজি হয়। কিন্তু বিজেপি চায়নি এত তাড়াতাড়ি আস্থাভোট হোক। বিজেপির আইনজীবী মুকুল রোহতাগী সেই প্রস্তাবের বিরোধিতা করে।

কংগ্রেসের তরফ থেকে অভিষেক মনু সিংভি বলেন, বিধায়কেরা যাতে নির্ভয়ে ভোট দিতে পারে তার জন্য পর্যাপ্ত নিরাপত্তার বন্দোবস্ত করতে হবে। পুরো ভোটের প্রক্রিয়া ভিডিওগ্রাফি করা হোক, এমন দাবিও জানিয়েছেন তিনি।

এদিন আদালতে বিচারপতি অর্জন কুমার সিকরি বলেন, আস্থাভোটই সবথেকে ভাল অপশন।

কর্ণাটকের বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির হাতে রয়েছে ১০৪টি আসন, কংগ্রেসের হাতে ৭৮টি ও জেডিএসের হাতে ৩৭টি আসন রয়েছে।

যদিও সুপ্রিম কোর্টের রায়ের পর, আত্মবিশ্বাস প্রকাশ করেছে বিজেপি। বিজেপির দাবি তাদের কাছে আট কংগ্রেস বিধায়ক ও ২ নির্দল বিধায়কের সমর্থন রয়েছে। সূত্রের খবর, এক কেন্দ্রীয়মন্ত্রীও দাবি করেছেন যে, তাদের কাছে কংগ্রেস বিধায়কদের সমর্থন রয়েছে।

অন্যদিকে, এই রায়ের পর ট্যুইট করেন রাহুল গান্ধী। তিনি, বলেন, ‘রাজ্যপালের অসাংবিধানিক সিদ্ধান্তই প্রমাণিত হল সুপ্রিম কোর্টে। এবার টাকা আর গায়ের জোর দেখানোর চেষ্টা করবে বিজেপি।’