সৌমেন শীল, নয়াদিল্লি: রাজধানীতে আজ কেন্দ্র রাজ্য সংঘাতের মহারণ৷ নজরে দেশের শীর্ষ আদালত৷ রাজ্যের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছে সিবিআই। পালটা রাজ্যও মামলা দায়ের করেছে। এই পরিস্থিতিতে স্পেশাল বেঞ্চ গঠন করেছে সুপ্রিম কোর্ট। প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ ছাড়াও বেঞ্চে রয়েছেন বিচারপতি দীপক গুপ্তা এবং বিচারপতি সঞ্জীব খান্না। আজ তিন বিচারপতির বেঞ্চে হবে ‘হাই-প্রোফাইল’ এই মামলার শুনানি৷

সিবিআই এবং রাজ্য দু’পক্ষেরই সওয়াল জবাবই আজ দেশের সর্বোচ্চ আদালত শুনবে বলে জানা গিয়েছে। মামলার দ্রুত শুনানির আবেদ জানানো হয় কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার তরফে৷ তবে সিবিআইয়ের আবেদন খারিজ করে দেয় আদালত৷ ফলে মঙ্গলবারই মামলায় চূড়ান্ত নির্দেশ দেওয়া নিয়ে অনিশ্চিয়তা রয়েছে। এদিনের শুনানিতে সিবিআইয়ের তরফে বেশ কিছু চাঞ্চল্যকর প্রমাণ আদালতের কাছে পেশ করতে পারে৷

 

ঘটনার সূত্রপাত গত রবিবার৷ সিবিআই আধিকারীকরা চিটফান্ডকাণ্ডে কলকাতার নগরপালের বাড়িতে অভিযানে যান৷ উপযুক্ত নথির অভাবে সেখানে তাদের ঢুকতে বাধা দেয় পুলিশ৷ শুরু হয় কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার আধিকারীকদের সঙ্গে পুলিশের বচসা৷ তবে কমিশনারের বাড়িতে গিয়ে তাকে জিজ্ঞাসাবাদে মরিয়া ছিল সিবিআই৷ এই পরিস্থিতিতে আটক করে লাউডন স্ট্রিট থেকে শেক্সপিয়র থানায় নিয়ে যাওয়া হয় সিবিআই আধিকারীকদের৷ সিবিআই কর্তাদের দাবি বিষয়টি আইন বিরুদ্ধ৷ এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে শুরু হয় কেন্দ্র রাজ্য তরজা৷

এরপরই সোমবার সুপ্রিম কোর্টে মামলা দায়ের করেন সিবিআইয়ের আইনজীবী। আদালত মামলা গ্রহণ করলেও গতকাল শুনানি হয়নি। আজ এই সংক্রান্ত মামলার শুনানি রয়েছে। সকাল সাড়ে ১০টায় মামলার শুনানি হবে বলে জানা গিয়েছে।

সিবিআইয়ের তরফে আদালতে জানানো হয়, রাজীব কুমারকে একাধিকবার নোটিশ দেওয়া সত্যেও তিনি তদন্তে কোনও রকম সাহায্য করেনি। প্রমাণ লোপাট করার আশঙ্কা রয়েছে বলেও সুপ্রিম কোর্টে জানিয়েছে সিবিআই। সূত্রের খবর, তদন্তের স্বার্থে কলকাতার পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারকে সিবিআইয়ের কাছে আত্মসমর্পণ করার কথা বলা হয়৷ শুনানিতে প্রধান বিচারপতি বলেন, পশ্চিমবঙ্গের কোনও পুলিশ অফিসার যদি চিটফান্ড কেলেঙ্কারি প্রভাবিত করতে চায় আর সেই প্রমাণ যদি সিবিআই দিতে পারে তাহলে বড়সড় পদক্ষেপ নেবে সুপ্রিম কোর্ট।

প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ সিবিআইকে বলেন, রাজীব কুমার যদি প্রমাণ লোপাটের কথা ভেবেও থাকেন তাহলে সেই প্রমাণ আমার সামনে পেশ করুন। বড়সড় পদক্ষেপ করবে সুপ্রিম কোর্ট৷ সুপ্রিম কোর্টে রাজীব কুমারের বিষয়ে সিবিআইয়ের কাছে থাকা সমস্ত প্রমান নথি তুলে ধরা হবে।

কী নির্দেশ দিতে পারে দেশের সর্বোচ্চ আদালত৷ সেদিকেই তাকিয়ে কেন্দ্র ও রাজ্য৷ এই নির্দেশ দেখেই চূড়ন্ত মোড় নিতে পারে কেন্দ্র রাজ্য সংঘাত৷ লোকসবার আগে তাই এদিনের সুপ্রিম নির্দেশ খুবই তাৎপর্যবাহী৷