কলকাতা : আগামী আর্থিক বছরে পাট চাষিদের  উত্সাহ দিতে পাটের ন্যূনতম সহায়ক মূল্য ১৮ .৫ শতাংশ বাড়িয়ে প্রতি কুইন্টালে ৩২০০ টাকা করার প্রস্তাব দিয়েছে জুট কমিশনারের দফতর৷ দফতরের এক কর্তা জানান , এই বছরে কুইন্টাল প্রতি পাটের ন্যূনতম সহায়ক মূল্য ছিল ২৭০০ টাকা৷ কিন্ত্ত , ফলন কম হওয়ার জন্য বাজারে এখন কাঁচা পাটের দাম বেড়ে দাঁড়িয়েছে কুইন্টাল প্রতি ৫ হাজার টাকার আশে পাশে৷ পরের বছরের জন্য দফতরর কাঁচা পাটের ন্যূনতম সহায়ক মূল্য ৩২০০ টাকা প্রতি কুইন্টাল করার জন্য মন্ত্রিসভার অনুমোদন চেয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে প্রস্তাব পাঠিয়েছে৷  অর্থাৎ এবারে ৫০০ টাকা বাড়ানোর প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে৷ যদিও তাতেও সমস্যার সমাধান হবে কি না সে নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে কারণ কেন্দ্রীয় সরকারি সংস্থা জুট কর্পোরেশন অফ ইন্ডিয়া -র হিসাবে অনুসারে পরের বছর চাষিদের এক কুইন্টাল পাট উত্পাদনের জন্য চাষের খরচ পড়বে ৩৬৫০ টাকা৷ সে ক্ষেত্রে ন্যূনতম সহায়ক মূল্য ৫০০ টাকা বাড়িয়েও কোনও লাভ হবে না আর পাট চাষ করতে চাষিদের আরও আগ্রহ কমবে বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা৷ প্রসঙ্গত , পাট চাষের জমি ক্রমশ কমছে৷ গত অর্থ বছরে যেখানে প্রায় ৮ লক্ষ হেক্টর জমিতে পাট চাষ হয়েছিল , সেখানে চলতি বছরে জমির পরিমাণ কমে দাঁড়িয়েছে সাড়ে ৭ লক্ষ হেক্টরে৷ কেন্দ্রীয় বস্ত্রমন্ত্রী সন্তোষ গাঙ্গোয়ার ইতিমধ্যেই সমস্যার কথা জানিয়ে কৃষিমন্ত্রী রাধা মোহন সিং চিঠি লিখেছেন৷ আর চটকলগুলিতে সব মিলিয়ে প্রায় পৌনে চার লক্ষ শ্রমিক কাজ করেন৷ কাঁচা পাটের অভাবে ইতিমধ্যেই বন্ধ হয়ে গিয়েছে ১৫টি চটকল৷ যারফলে কর্মহীন ৭০ হাজার শ্রমিক৷ এমতাবস্থায় , পাটের ন্যূনতম সহায়ক মূল্য বাড়িয়ে চটশিল্পকে সামান্য হলেও অক্সিজেন দিতে চাইছে কেন্দ্র৷