নয়াদিল্লি: সোমবার থেকে কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে ৫৯ টি চিনা অ্যাপ ব্যানের সিদ্ধান্তের পরে কার্যত বেশিরভাগ মানুষজন সমর্থন জানিয়েছেন এই সিদ্ধান্তকে। তবে কেবল সাধারণ মানুষ নয়, সমর্থন জানিয়েছেন দেশের একাধিক সাইবার বিশেষজ্ঞরাও।

আর কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্তের পর থেকেই কার্যত আশার আলো দেখেছে দেশীয় অ্যাপগুলি। আর এবারে ভারত সরকারের এই সিদ্ধান্তের সমর্থন জানাল মার্কিন নাগরিকেরাও।

ইতিমধ্যে আমেরিকাতে দীর্ঘদিন ধরেই টিকটক সহ বেশ কিছু অ্যাপ ব্যান করার দাবি জানানো হয়েছে । আর মার্কিন বিশেষজ্ঞদের তরফে জানানো হয়েছিল নিরাপত্তা জনিত কারণেই তাদের দেশে ব্যান করার দাবি জানানো হয়েছে এই জাতীয় অ্যাপগুলির বিরুদ্ধে।

আর ভারত সরকারের এই সিদ্ধান্তের ফলে কার্যত একাধিক মার্কিন নাগরিক সমর্থন জানিয়েছেন এই সিদ্ধান্তের। দেশের নিরাপত্তার কথা মাথাতে রেখেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে কেন্দ্রের তরফে। তবে গালওয়ান সীমান্তে চিন ভারত সংঘর্ষের পরেই কার্যত চিনকে এইভাবে ডিজিটাল আক্রমণ করল ভারত। যা হয়তো ভাবতে পারেনি চিন। আর এই সিদ্ধান্তের ফলে চিনকে যে আর্থিক সমস্যার মুখোমুখি হতে হবে তা কার্যত পরিস্কার।

রিপাবলিকান সেনেটার জন ক্রনিন টুইটারে ভারত সরকারের এই সিদ্ধান্তের সমর্থন জানিয়েছেন। পাশপাশি সমর্থন জানিয়েছেন রিপাবলিকান কংগ্রেসম্যান রিক ক্রাউফরদ। গত সপ্তাহেই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ রবার্ট ও ব্রায়েন জানিয়েছিলেন চিনা সরকার এই সকল চিনা অ্যাপ নিজেদের স্বার্থে ব্যবহার করছে। তবে একাধিক মার্কিন সংবাদ মাধ্যমের তরফে প্রশ্ন তোলা হয়েছে মার্কিন প্রশাসনের দিকে।

ভারত যেখানে ৫৯ গুলি অ্যাপ ব্যান করল সেখানে আমেরিকার আগামী পদক্ষেপ নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন একাধিক সংবাদ মাধ্যম। এমনকি একাধিক জনপ্রিয় লেখক প্রশ্ন তুলছেন আমেরিকার আগামী পদক্ষেপ নিয়ে। যদিও টিকটক ইন্ডিয়ার তরফে জানানো হয়েছে তারা কোন ব্যবহারকারীর তথ্য বিদেশে ব্যবহার করেনি। এমনকি চিনা সরকারকেও নয়।তাদের কাছে ব্যবহারকারীদের নিরাপত্তার বিষয়টি যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ।

সপ্তম পর্বের দশভূজা লুভা নাহিদ চৌধুরী।