গোয়া: মুখ্যমন্ত্রীর এক মন্তব্য পাটলে গেল ঝড়ের সংজ্ঞা৷ ঘূর্ণিঝড় ওকি নয়, সমুদ্রে জলস্তর বেড়ে যাওয়ার জন্য সুপার মুনকেই এবার দায়ী করলেন গোয়ার মুখ্যমন্ত্রী তথা দেশের প্রাক্তন প্রতিরক্ষামন্ত্রী মনোহর পারিক্কর৷ রবিবারের সুপার মুন ঘূর্ণিঝড় ওকিকে ডেকে এনেছে বলে বিতর্কের মুখে পড়েন গোয়ার মুখ্যমন্ত্রী৷ পারিক্করের দাবি, সুপার মুনের টানে সমুদ্রের জলস্তর বৃদ্ধি পেয়েছে৷ আর সেই কারণেই উপকূলে ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে৷

তবে, এখানেই থামেননি পারিক্কর৷ তাঁর আরও দাবি, এই ধরণের বিপর্যয় মোকাবিলায় তার সরকারের কিছুই করার নেয়৷ পরিস্থিতির সঙ্গে যুঝতে তেমন কোনও পরিকাঠামোই গড়ে তুলতে পারেনি গোয়ার সরকার৷ ফলে, চোখের সামনে মানুষের মৃত্যু দেখা ছাড়া পারিক্কর সরকারের কাছে অন্য কোনও বিকল্প নেই৷

রাজ্যের ঘূর্ণিঝড় ওকির তাণ্ডব প্রসঙ্গে পারিক্করের মন্তব্য, ‘‘এটা খুবই পরিষ্কার, রবিবারের সুপার মুনের প্রভাবে সমুদ্রে জলস্তর বৃদ্ধি পেয়েছে৷ তাতেই উপকূল লাগোয়া এলাকায় কিছু ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে৷’’ মুখ্যমন্ত্রীর যুক্তি, ‘‘সুপার মুনের প্রভাবে বড়সড় জোয়ার এসেছিল৷ জোয়ারের জলেই সামান্য কিছু ক্ষতি হয়েছে৷ কিন্তু, কোনও ঘূর্ণিঝড় হয়নি৷ যা হয়েছে সব জোয়ারের জলেই ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে৷’’

এই ধরণের প্রাকৃতিক ঘটনা ঘূর্ণিঝড় ছাড়াও ঘটতে পারে৷ বড়সড় জোয়ারের জল স্বাভাবিক জোয়ারের তুলনায় অনেক বেশি হয়৷ এটাই স্বাভাবিক৷ কারণ, ওই দিনটি ছিল এটি একটি বিশেষ দিন৷ সুপার মুনের কারণে জলস্তর বৃদ্ধি পেয়েছে৷ ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবের কিন্তু এই ঘটনা ঘটেনি৷ জলস্তর অতিরিক্ত বৃদ্ধি পাওয়ায় ক্ষতি একটু বেশী ছিল৷’’

মহারাষ্ট্র হয়ে গুজরাতে ঢোকার আগে ওকি তাণ্ডব যখন কেরল, তামিলনাড়ু ও লাক্ষাদ্বীপে চলছে, ঠিক তখনই মুখ্যমন্ত্রীর এহেন মন্তব্যকে কেন্দ্র করে বিতর্ক দানা বেধেছে৷ মুখ্যমন্ত্রিত্বের পদে বসে রাজ্যে ঘটে চলে বিপর্যয় সম্পর্কে এভাবে দায় ছাড়া মন্তব্য কীভাবে বলতে পারলেন তিনি? উঠছে প্রশ্ন৷ ঘূর্ণিঝড় ওকির তাণ্ডবে গুজরাতে নির্বাচনী প্রক্রিয়া বন্ধ, যখন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের তরফে বারবার জানানো হয়েছে, এখনও পর্যন্ত ঘূর্ণিঝড় ওকির দাপটে তামিলনাড়ু ও কেরলে ৩৯ জন প্রাণ হারিয়েছেন, এখনও নিখোঁজ রয়েছেন ১৬৭ জন মৎস্যজীবী তখন মুখ্যমন্ত্রী বিষয়টির গভীরতা সম্পর্কে কোনও ধারণা করতে না পেরে এহেন মন্তব্য করেছেন? প্রশ্ন তুলছেন গোয়ার সাধারণ মানুষ৷